,


শিরোনাম:
«» কক্সবাজার টেকনাফের এডভোকেট আব্দুর রহমান ইয়াবাসহ তুরাগে পুলিশের জালে ধরা। «» জিএম কাদেরের ফোন ছিনতাই করে ২৩ হাজার টাকা বিক্রি, বসুন্ধরা মার্কেট থেকে ৮ দিন পর খোলা ফোন উদ্ধার। «» শেরে-বাংলা নগরে প্রশাসনকে মাসোহারা দিয়েই চলছে সরকারি দপ্তরের গাড়ির তেল চুরি «» উত্তরায় কিশোর গ্যাংয়ের ছিনতাইয়ের কবলে পথচারীরা। «» আব্দুল্লাহপুরের তালাবদ্ধ গরুর সিকল কেটে থানায় এনে চাঁদা আদায় ক্ষুব্দ গরুর মালিক  «» ‘পড়ি বঙ্গবন্ধুর বই, সোনার মানুষ হই ‘-শীর্ষক সেরা পাঠকদের পুরষ্কার বিতরণী «» মহানন্দা নদীতে যূবকের রহস্যজনক মৃত্যু হস্তক্ষেপ নেই দায়িত্বশীলদের «» জেলা পুলিশ চাঁপাইনবাবগঞ্জ’র মাস্টার প্যারেড সম্পন্ন «» দখিনের দুয়ার উম্মোচনে ফরিদগঞ্জে আনন্দ র‍্যালী «» আব্দুল্লাহপুরে এনা পরিবহনের বাস চাপায় মৃত্যু পথযাত্রী নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী সাআ’দ।

জিএম কাদেরের ফোন ছিনতাই করে ২৩ হাজার টাকা বিক্রি, বসুন্ধরা মার্কেট থেকে ৮ দিন পর খোলা ফোন উদ্ধার।

স্টাফ রিপোর্টার রাকিবঃ জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদেরের নিজস্ব ব্যবহৃত ফোন চুরি করে বসুন্ধরার একটি শপিংমলে ২৩ হাজার টাকা বিক্রি করেন ছিনতাইকারী চক্র। সেই ফোন পুলিশি তৎপরতায় ৮ দিন পর উদ্ধার হয়েছে। উদ্ধার করেছেন এস আই রুবেল শেখ ও আনসার সাইয়ান মোর্শেদ। রাজধানীর বিমানবন্দরের সামনে দিয়ে যাওয়ার পথে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদেরের ফোন ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে গত ৩১ আগস্ট রাত আনুমানিক ১১:১৫ মিনিটের সময়। গাড়িতে বসে ফোনে কথা বলা অবস্থায় ছিনতাইকারী চক্রের দুই সদস্য মোবাইল টান দিয়ে পালিয়ে যায়। পরে বিমানবন্দর থানায় গত ৩১ আগস্ট রাতে জিএম কাদেরের মোবাইল ছিনতাইয়ের ঘটনা উল্লেখ করে তার একান্ত সহকারী তৈয়ব আলী বিমানবন্দর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা নম্বর (৩)। মামলার ৮ দিন পর বুধবার (৭ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর বসুন্ধরা থেকে আইফোনটি উদ্ধার করেন এস আই রুবেল শেখ ও আনসার সদস্য মোঃ সাঈয়ান মোরশেদসহ সঙ্গীয় ফোর্স। এ ঘটনায় গ্রেফতার করা হয়েছে ছিনতাইকারী চক্রের ৫ সদস্যকে।


গ্রেফতারকৃতরা হলেন মোঃ আজিজুল (২১), মোঃ আজিজ(১৯) মোহাম্মদ ইসমাইল (২৪), মোঃ সানাউল্লাহ (৩২), ও সুবল চন্দ্র ঘোষ (৩২)। মামলার পরপরই বিমানবন্দর থানার এস আই রুবেল শেখ ও আনসার মোঃ সাঈয়ান মোরশেদ ঘটনাস্থলে গিয়ে আসপাশের মানুষের কাছে ছিনতাইয়ের বিষয়ে জানতে চাইলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যক্তি বলেন কারা এমন কাজ করেছে আমি দেখিয়ে দিতে পারবো। এমন তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে ছিনতাইকারী চক্রের মোঃ আজিজুল (২১), নামে এক ব্যক্তিকে আটক করেন। জিজ্ঞাসাবাদে তিনি বলেন ছিনতাই করেছি আমি কিন্তু ফোনটি আমার সাথে থাকা সহযোগী আজিজের কাছে আছে। এমন তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে মোঃ আজিজ (১৯) কে বসুন্ধরা মার্কেটের পিছনের একটি বাড়ি থেকে আটক করে জানা যায় আজিজ ফোনটি, মোহাম্মদ ইসমাইল (২৪) নামক একব্যক্তির কাছে ১৮০০০ হাজার টাকা মূল্যে বিক্রি করেছে। পরবর্তীতে ইসমাইলকে গ্রেফতারের পর তিনি জানায় ফোনটি বসুন্ধরা মার্কেটের পঞ্চম তলার ৯৩ নাম্বার দোকানে মোঃ সানাউল্লাহ (৩২) এর কাছে ২০ হাজার টাকায় বিক্রি করেন। এমন তথ্যের পর বসুন্ধরা মার্কেটে অভিযান চালিয়ে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করেন। কিন্তু ফোন মেলেনি সেখানেও। সানাউল্লাহ ফোনের লক খুলতে না পেরে ২৩ হাজার টাকায় বিক্রি করে দেন পাশের দোকানী সুবল চন্দ্র ঘোষ (৩২)এর কাছে। সবশেষে পুলিশ সেখানে অভিযান চালিয়ে ফোনটি সম্পূর্ণ খোলা অবস্থায় উদ্ধার করে। তারই সাথে সুবল চন্দ্র ঘোষকেও আটক করে।

বৃহস্পতিবার (৮ সেপ্টেম্বর) উত্তরা ৭ নম্বর সেক্টরে জিএম কাদেরের বাসায় গিয়ে বিকালে পুলিশ সদস্যরা আইফোনটি তার হাতে তুলে দেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন উত্তরা বিভাগের উপকমিশনার মোর্শেদ আলম, অতিরিক্ত উপ-কমিশনার তাপস কুমার। মোবাইল ফোন ফেরত পেয়ে স্বস্তি প্রকাশ করেন জিএম কাদের। তিনি পুলিশ সদস্যদের ধন্যবাদ জানান।

মোবাইল উদ্ধারের বিষয়টি বলতে গিয়ে পুলিশের উত্তরা বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার তাপস কুমার বলেন, গত ৩১ আগস্ট উত্তরায় বাসায় যাওয়ার পথে বিমানবন্দর থানা এলাকার রাস্তায় গাড়িতে থাকা অবস্থায় জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদেরের মোবাইল ফোনটি টান মেরে নিয়ে যায় দুই ছিনতাইকারী।

পরে অভিযান চালিয়ে বসুন্ধরা থেকে আইফোনটি উদ্ধার করতে সক্ষম হই। এ ঘটনায় পাঁচ ছিনতাইকারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মোবাইলটি ছিনতাইকারীরা ছিনতাইয়ের পর বসুন্ধরায় বিক্রি করে। মোবাইলটি ৪ বার বিক্রি হয় বিভিন্ন জনের কাছে। লাখ টাকার মোবাইল বিক্রি হওয়া শুরু হয় ১৮ হাজার টাকায় এবং সবশেষ হাতে যায় ২৩ হাজার টাকায়।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ