,


শিরোনাম:
«» কক্সবাজার টেকনাফের এডভোকেট আব্দুর রহমান ইয়াবাসহ তুরাগে পুলিশের জালে ধরা। «» জিএম কাদেরের ফোন ছিনতাই করে ২৩ হাজার টাকা বিক্রি, বসুন্ধরা মার্কেট থেকে ৮ দিন পর খোলা ফোন উদ্ধার। «» শেরে-বাংলা নগরে প্রশাসনকে মাসোহারা দিয়েই চলছে সরকারি দপ্তরের গাড়ির তেল চুরি «» উত্তরায় কিশোর গ্যাংয়ের ছিনতাইয়ের কবলে পথচারীরা। «» আব্দুল্লাহপুরের তালাবদ্ধ গরুর সিকল কেটে থানায় এনে চাঁদা আদায় ক্ষুব্দ গরুর মালিক  «» ‘পড়ি বঙ্গবন্ধুর বই, সোনার মানুষ হই ‘-শীর্ষক সেরা পাঠকদের পুরষ্কার বিতরণী «» মহানন্দা নদীতে যূবকের রহস্যজনক মৃত্যু হস্তক্ষেপ নেই দায়িত্বশীলদের «» জেলা পুলিশ চাঁপাইনবাবগঞ্জ’র মাস্টার প্যারেড সম্পন্ন «» দখিনের দুয়ার উম্মোচনে ফরিদগঞ্জে আনন্দ র‍্যালী «» আব্দুল্লাহপুরে এনা পরিবহনের বাস চাপায় মৃত্যু পথযাত্রী নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী সাআ’দ।

উত্তরায় কিশোর গ্যাংয়ের ছিনতাইয়ের কবলে পথচারীরা।

উত্তরা প্রতিনিধিঃ  রাজধানীর উত্তরায় ছিনতাইয়ের ঘটনা নিত্যদিনের ভোগান্তি হয়ে দাঁড়িয়েছে। রাস্তায় চলাচলরত মানুষের হেঁটে কিংবা রিক্সায় অথবা ব্যক্তি মালিকানাধীন গাড়িসহ বাসে করে চলাচল ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে। কিশোর গ্যাংয়ের অত্যাচারে অতিষ্ঠ উত্তরা আবাসিক এলাকায় বসবাসরত মানুষ ও ঢাকা-আশুলিয়া মহাসড়কে চলাচলকারী পথচারীরা। ফাঁকা রাস্তায়ও প্রতিনিয়ত ছিনতাইকারীদের কবলে পড়তে হচ্ছে সাধারণ মানুষকে। সকাল-দুপুর- আর সন্ধ্যা নয় সব সময়ই হরহামেশাই ঘটছে এরকম নানা অপ্রীতিকর ঘটনা। কিন্তু ভয়ঙ্কর ব্যাপার হলো-ছিনতাইকারী এই কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা এখন শুধুু টাকা-পয়সা ও মূল্যবান জিনিসপত্র ছিনিয়ে নিয়েই ক্ষ্যান্ত হচ্ছে না! করছে ছুরিকাঘাত, গুলি ও খুন।

তেমনি একটি ঘটনা ঘটেছে উত্তরা ১০ নাম্বার সেক্টর স্লুইচগেট এলাকায়। গত বৃহস্পতিবার ৪ আগস্ট রাত আনুমানিক ৯ টার সময়। মোঃ সাজেদুল (২০) নামক একব্যক্তি স্লুইচ গেট থেকে পায়ে হেঁটে স্লুইচ গেট কাচামালের আড়তের সামনে দিয়ে যাওয়ার সময় একটি মোটরসাইকেল আরোহী মোঃ পায়েল (২২) ও মোঃ ইসমাইল নামক দুই কিশোর গ্যাংয়ের সদস্য সাজেদুলের হাতে থাকা মোবাইল ফোন থাবা দিয়ে নিয়ে যাওয়ার পথে সাজেদুল মাহিন্দ্রা কোম্পানির ১০০ সিসি গাড়ির পিছনে থাকা ব্যাক স্ট্যান্ড ধরে ফোনসহ ছিনতাইকারী সদস্যদের আটকের চেষ্টা করলে ছিনতাইকারী চক্রের ইসমাইলের হাতে থাকা চাকু দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে মারাত্মক আঘাত করে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে চলন্ত মোটরসাইকেল থেকে লাফিয়ে পালিয়ে যায়। অন্য দিকে চক্রের অন্য সদস্য মাজেদুল গাড়ির পিছনে ধরে রাখা অবস্থায় প্রায় ৪০০ গজ রাস্তার উপর দিয়ে সাজেদুলকে হেচরাতে হেচরাতে নিয়ে রাস্তার পাশে থাকা ময়লার স্তূপের মধ্যে পড়ে। সেখানে পড়ে গেলে সাজেদুল ছিনতাইকারী চক্রের সদস্য পায়েলকে জড়িয়ে ধরে চিতকার চেচামেচি করলে আশপাশের লোকজন এসে ছিনতাইয়ের কাজে ব্যবহারকৃত মোটরসাইকেল ও ছিনতাইকারী চক্রের সদস্য পায়েলকে আটক করে উত্তরা পশ্চিম থানার এ এস আই হাসিনুরের কাছে কামারপাড়া পুলিশ বক্সে বুঝিয়ে দেয়।

পরে আকটকৃত মোটরসাইকেল(ঢাকা মেট্রো হ ২৬–২০৬৬) ও মোঃ পায়েলকে উত্তরা পশ্চিম থানায় নিয়ে যান। আহত মোঃ সাজেদুল ইসলামকে চিকিৎসার জন্য
টঙ্গী শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়। সাজেদুল ইসলাম কুমিল্লা জেলার
মুরাদনগর থানাধীন রচাল গ্রামের মোঃ বজলুর রহমানের ছেলে বলে জানা গেছে।

খবর নিয়ে জানা গেছে পালিয়ে যাওয়া ছিনতাইকারী চক্রের ইসমাইল তুরাগের কামারপাড়া এলাকার কালিয়ারটেকের বাসিন্দা। অন্যদিকে আটক হওয়া পায়েল উত্তরা পশ্চিম থানাধীন ১০ নাম্বার সেক্টর ২০ নাম্বার রোডের যুবলীগের হারুনুর রশিদের ভাগিনা। স্থানীয় বাসিন্দারা জানান দীর্ঘদিন যাবত এই চক্রটি উত্তরা ও তুরাগের বিভিন্ন স্থানে ছিনতাইকারী চক্র তৈরি করে ছিনতাইয়ের মতো অপরাধ করে আসছে। অসংখ্য সাধারণ মানুষকে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে সর্বস্ব ছিনিয়ে নিচ্ছে। স্থানীয়দের দাবি শুধুমাত্র এই দুজনই নয়, এই চক্রের রয়েছে আরও অনেক সদস্য। অতি শীঘ্রই এই চক্রের সক্রিয় সদস্যদের আইনের আওতায় আনার দাবি করেন স্থানীয়রা।

এবিষয়ে উত্তরা পশ্চিম থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মহসিনের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান ছিনতাইকারী চক্রের বিরুদ্ধে একটি মামলা রুজু করা হয়েছে। যার নাম্বার ১৫। ছিনতাইকৃত মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়েছে এবং একজনকে আটক করা হয়েছে।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ