,


শিরোনাম:
«» ক্ষতিগ্রস্ত ৩৩ দোকান মালিকরা পেলেন প্রধানমন্ত্রীর অনুদান «» যৌতুক না পেয়ে নির্যাতনের অভিযোগ, গৃহবধূকে মারধর «» তুরাগে ১৫০টি দোকানের বিদ্যুৎ বিল মাসে ৭০০ টাকা দেখিয়ে প্রায় ৫ লক্ষ টাকা আত্মসাৎকারী নামধারী নেতা গ্রেফতার। «» তুরাগে আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের নতুন সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন কার্যক্রম শুরু «» তুরাগে ২ বছরের শিশু ধর্ষণ : ধর্ষক মামুন আটক। «» ইদ-ই-মিলাদুন্নবি উপলক্ষে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের নিয়ে দোয়া ও আলোচনা সভার আয়োজন করেছে স্বপ্নালোড়ন বাংলাদেশ «» কক্সবাজার টেকনাফের এডভোকেট আব্দুর রহমান ইয়াবাসহ তুরাগে পুলিশের জালে ধরা। «» জিএম কাদেরের ফোন ছিনতাই করে ২৩ হাজার টাকা বিক্রি, বসুন্ধরা মার্কেট থেকে ৮ দিন পর খোলা ফোন উদ্ধার। «» শেরে-বাংলা নগরে প্রশাসনকে মাসোহারা দিয়েই চলছে সরকারি দপ্তরের গাড়ির তেল চুরি «» উত্তরায় কিশোর গ্যাংয়ের ছিনতাইয়ের কবলে পথচারীরা।

দুই সন্তান নাজমুল ও সুপারেশ কর্তৃক বৃদ্ধা মা লাঞ্ছিত” থানায় অভিযোগ

ফাহিম ফরহাদ, চাঁপাইনবাবগঞ্জঃ শাহবাজপুর ইউনিয়ন আজমতপুর হুদমাপাড়া শিবগঞ্জ চাঁপাইনবাবগঞ্জে দুই ছেলে নাজমুল ও সুপারেশ স্ব-পরিবারে বৃদ্ধা মা গুলেনুর বিবি (৭০)’র উপর হামলার ঘটনা ঘটিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে!

এসময় বসতবাড়ি ভাঙ্গচুর লোটপাটের অভিযোগ তুলেছে অভিযুক্ত ছেলেদের দ্বারা ভূক্তভূগী বৃদ্ধা মা গুলেনুর বিবি (৭০)। ২৭/০৫/২০২২খ্রি. শুক্রবার সকাল ৮টায় এ ঘটনা ঘটে বলে জানায় স্থানীয়রা ও ভূক্তভূগী মায়ের অপর দুই ছেলে এবং তিন মেয়েসহ বৃদ্ধা মা গুলেনুর বিবি। এ বিষয়ে ভূক্তভূগী গুলেনুর বিবি(৭০), শিবগঞ্জ থানায় নিজ সন্তানদের মধ্যে ২সন্তান সবার বড় ও সবার ছোট (নাজমূল, সুপারেশ) ছেলেদের বউদ্বয় সন্তান সন্ততীসহ অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামী সাব্যস্ত করে একটি অভিযোগ দায়ের করেন বলে নিশ্চিত হওয়া যায় থানা অভিযোগপত্র সূত্রে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে শিবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা চৌধুরী জুবায়ের আহমদ গণমাধ্যমকে বলেন, অভিযোগ পেয়েছি, তদন্ত পূর্বক যথোপযুক্ত ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে। এ বিষয়ে তথ্য সংগ্রহে সংবাদকর্মী সরেজমিনে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে গেলে, অভিযুক্তরা কথা বলতে নারাজ হয়ে লোকমারফত প্রতিবেশি (এনামুল কর্তৃক) সংবাদকর্মীদের মোবাইল ফোনে মেনেজ করার বৃথা চেষ্টা চালায়।

উল্লেখ্য….মোসা. গুলেনুর বিবি (৭০) স্বামী মৃত লুৎফর রহমান, আজমতপুর হুদমাপাড়া, শিবগঞ্জ, চাঁপাইনবাবগঞ্জের স্থায়ী বাসিন্দা। গত ১৯৯৯ খ্রি. তার স্বামী লুৎফর রহমান ০৪ পুত্র ও ০৩ কন্যা সন্তান রাখিয়া মৃত্যুবরণ করেন। সে যাবৎকাল হইতে নিজ মাকে অদ্যাবধি দীর্ঘ প্রায় ২১ বছর সময়কাল অবদি মোসা. গুলেনুর বিবি এর সেজ ছেলে মো. মনিরুল ইসলাম (৪০) স্ব-স্ত্রীক সাং আজমতপুর হুদমা পাড়া, পো. আজমতপুর মুল্লাটোলা, শাহবাজপুর ইউনিয়ন, ০৮নং ওয়ার্ড, শিবগঞ্জ চাঁপাইনবাবগঞ্জ এর সাথে পরিবারে যুক্ত রেখে মায়ের সেবাযত্ন দেখভাল করে আসছেন। বিধায় মায়ের কিছু বার্তি জমি যা সেজ ছেলে মনিরুলকে লিখে দেন কিছুদিন পূর্বে। যা বড় ছেলে নাজমুল ও ছোট ছেলে সুপারেশ মানতে নারাজ।

পূর্বের জমিজমা সংক্রান্ত পারিবারিক ঝামেলার জেরে ঘটনার দিন সকালে নিজ বাড়ীর পেছন সাইডে ভিকটিমের সেজ ছেলের স্ত্রী লাকড়ি আনতে যায়, মো. নাজমুল সাং, পো. ইউ. ও থানা একই ভিকটিমকে নিজ বাড়ীর রাস্তা ব্যাবহারে নিষেধ বারন করেন, বাড়ির পেছন অংশে যাবার রাস্তা একমাত্র বড় ভাই নাজমুলের বাড়ির অংশে হওয়ায় সে রাস্তা ব্যাবহার করেই বাড়ির পেছন অংশে ধান স্বিদ্ধ করার লকরি আনতে যায় মনিরুলের স্ত্রী আনুয়ারি।

সে সময় নাজমুল, সুপারেশ, রাজিম, সায়েরা, ফুলতারা কতিপয় ব্যাক্তি মিলে ভিকটিম সাথে সামান্য বিষয়কে কেন্দ্র করে বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে গুলেনুর বিবিকে গালমন্দ, মারধর শুরু করে। পরে খবর পেয়ে ভিকটিমের সেজ সন্তান মো. মনিরুল ইসলাম ও তার অপর মেঝ ছেলে এনামুল ঘটনাস্থলে পৌছালে ইটপাটকেল ছুড়ে আঘাত করে। এতে স্বপরিবারে দুই সন্তান তাদের স্ত্রী ও মা আঘাত প্রাপ্ত হয়। এসময় ভিকটিম পরিবার পরিস্থিতি সামাল দিতে না পেড়ে প্রতিবেশিদের বাসভবনে আশ্রয় নেয়।

এমতাবস্থায় সুযোগ বুঝে উপরউল্লেখিত অভিযুক্ত কতিপয় ব্যাক্তিরা সকলে একত্রিত হয়ে পরিবারের মুরব্বী বৃদ্ধা মা (গুলেনুর বিবি ৭০) এর বসতবাড়ি ভাঙ্গচুর করে, মাকে প্রহারের পর অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করে লাঞ্ছিতও করে বলে জানা যায়। এসময় প্রায় চার লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি সাধন হয় বলে জানান গুলেনুর বিবি ও অপর দুই সন্তান। এছারাও নগদ ৭৫০০০ টাকাসহ মূল্যবান তৈজসপত্র লুটপাট করারও অভিযোগ করেন ভিকটিম গুলেনুর বিবি (৭০) নিজ দুই সন্তান ও তাদের পরিবারের বিরুদ্ধে।

একই সময় বাড়ির সবচেয়ে মুরব্বি চার ভাই ও তিন বোনের একমাত্র মা অপর দুই সন্তান ছেলে, তিন সন্তান মেয়েসহ তাদের গোটা পরিবারকে প্রাণ নাশের হুমকি প্রদান করেন নাজমুল, সুপারেশ ও তাদের উভয়ের পরিবার সদস্যরাসহ অজ্ঞাত কয়েকজন। এ বিষয়ে ভিকটিম তার অপর দুই ছেলে ও তিন মেয়েসহ সকলে নিরাপত্তাহীনতায় থাকার কথা জানান গণমাধ্যমকর্মীদের। ভিকটিম পরিবার সকলে থানা পুলিশের মাধ্যমে নিরাপত্তা নিশ্চিত করে সুস্থ বিচার নিশ্চিত করার আশাবাদ জানান গণমাধ্যমকর্মীদের মাধ্যমে।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ