,


শিরোনাম:
«» কক্সবাজার টেকনাফের এডভোকেট আব্দুর রহমান ইয়াবাসহ তুরাগে পুলিশের জালে ধরা। «» জিএম কাদেরের ফোন ছিনতাই করে ২৩ হাজার টাকা বিক্রি, বসুন্ধরা মার্কেট থেকে ৮ দিন পর খোলা ফোন উদ্ধার। «» শেরে-বাংলা নগরে প্রশাসনকে মাসোহারা দিয়েই চলছে সরকারি দপ্তরের গাড়ির তেল চুরি «» উত্তরায় কিশোর গ্যাংয়ের ছিনতাইয়ের কবলে পথচারীরা। «» আব্দুল্লাহপুরের তালাবদ্ধ গরুর সিকল কেটে থানায় এনে চাঁদা আদায় ক্ষুব্দ গরুর মালিক  «» ‘পড়ি বঙ্গবন্ধুর বই, সোনার মানুষ হই ‘-শীর্ষক সেরা পাঠকদের পুরষ্কার বিতরণী «» মহানন্দা নদীতে যূবকের রহস্যজনক মৃত্যু হস্তক্ষেপ নেই দায়িত্বশীলদের «» জেলা পুলিশ চাঁপাইনবাবগঞ্জ’র মাস্টার প্যারেড সম্পন্ন «» দখিনের দুয়ার উম্মোচনে ফরিদগঞ্জে আনন্দ র‍্যালী «» আব্দুল্লাহপুরে এনা পরিবহনের বাস চাপায় মৃত্যু পথযাত্রী নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী সাআ’দ।

ময়মনসিংহের বড় মসজিদে ধর্মদ্রোহী নেতৃত্বের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত।

গোলাম কিবরিয়া পলাশ, ময়মনসিংহঃ ময়মনসিংহের ঐতিহ্যবাহী বড় মসজিদ কমিটি থেকে ধর্মদ্রোহী সভাপতি ফকির মো: আব্দুল জলিল এর কমিটির নেতৃত্বের অবসানের লক্ষ্যে বড় মসজিদ প্রাঙ্গণে আজ ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২২ তারিখ বুধবার দুপুরে মুসল্লীবৃন্দ ও এলাকাবাসীর উদ্যোগে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

প্রতিবাদ সভায় বক্তাগণ বলেন, মসজিদ ও মাদরাসার সুষ্ঠু ও সুন্দর পরিবেশ বজায় রাখার লক্ষ্যে এবং উদ্ভূত পরিস্থিতি নিরসনকল্পে ফকির মো: আব্দুল সাহেবের কমিটির পরিবর্তে গত ২৮/০৬/২০২১ তারিখে বাংলাদেশ ওয়াকফ প্রশাসনে ডা. ফয়েজ আহমদ সাবমিট করা কমিটি দেখতে চাই না। ফকির মো: আব্দুল জলিল ময়মনসিংহের বড় মসজিদের কার্যকরী কমিটিতে অতীতে বিভিন্নপদে ১২ বছর ছিলেন। তবে কোন সময়ই তার অবস্থান বিতর্কের ঊর্ধ্বে ছিলো না।

এমনকি শেষ ০৬ বছর কমিটিতে দায়িত্বশীল পদে থেকেও মসজিদ কমপ্লেক্সের ভিতরে আসার সাহস পায়নি। তবে এসময়ে বাহিরে থেকেও মসজিদ মার্কেটের ভাড়াও শৌচাগারের ইজারার টাকা থেকে মসজিদ মাদরাসায় কর্মরত কাউকে বেতন না দিয়ে নিজে আত্মসাৎ অবশেষে ২০০৭ সালে অত্যন্ত লাঞ্চনার সাথে মসজিদের মুসল্লিগণ তাকে বিতাড়িত করেন।

বক্তাগণ আরো বলেন, ৬০/৬৫ বছর যেতে না যেতেই ঐতিহ্যবাহী স্থাপত্য শিল্পের আদলে গড়ে তোলা অত্যান্ত মজবুত বড় মসজিদ ভবনকে ভেঙ্গে ফেলে নিচ তলায় ব্যাবসায়ী প্রতিষ্ঠান গড়ার পরিকল্পন করছেন এই ধর্মদ্রোহী সভাপতি ফকির মো: আব্দুল জলিল। বিষয়টি নিয়ে কমিটির ও স্থানীয়দের বিরোধিতা রয়েছে। জানা যায় এই বিষয়ে এবং এই কমিটি ভাঙ্গার লক্ষ্যে ময়মনসিংহের বিভাগীয় কমিশনা, জেলা প্রশাসক, সিটি কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষের কাছে অনুলিপি দেওয়া হয়েছে।

প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন শিক্ষা সচিব মুফতী রইসুল ইসলাম, মাওলানা আব্দুল আওয়াল মুহাদীস, মাওলানা রফিকুল ইসলাম মুহাদীস, মাওলানা ওমর ফারুক মুহাদীস, মাওলানা আজীজুল হক মুহাদীস, মুফতী সরওয়ার নায়েবে মুহতামীম, হিফজ বিভাগের প্রধান শিক্ষক মোঃ শহীদুল ইসলাম সহ প্রমূখ।

প্রতিবাদ সভায় সমাপনি বক্তব্য শেষে সার্বিক মঙ্গল কামনা করে দোয়া করেন ময়মনসিংহের ঐতিহ্যবাহী কাওমি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জামিয়া ফয়জুর রহমান (রহঃ) এর প্রিন্সিপাল ও বড় মসজিদের পেশ ইমাম ও খতীব, আল্লামা আব্দুল হক।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ