,


শিরোনাম:
«» কক্সবাজার টেকনাফের এডভোকেট আব্দুর রহমান ইয়াবাসহ তুরাগে পুলিশের জালে ধরা। «» জিএম কাদেরের ফোন ছিনতাই করে ২৩ হাজার টাকা বিক্রি, বসুন্ধরা মার্কেট থেকে ৮ দিন পর খোলা ফোন উদ্ধার। «» শেরে-বাংলা নগরে প্রশাসনকে মাসোহারা দিয়েই চলছে সরকারি দপ্তরের গাড়ির তেল চুরি «» উত্তরায় কিশোর গ্যাংয়ের ছিনতাইয়ের কবলে পথচারীরা। «» আব্দুল্লাহপুরের তালাবদ্ধ গরুর সিকল কেটে থানায় এনে চাঁদা আদায় ক্ষুব্দ গরুর মালিক  «» ‘পড়ি বঙ্গবন্ধুর বই, সোনার মানুষ হই ‘-শীর্ষক সেরা পাঠকদের পুরষ্কার বিতরণী «» মহানন্দা নদীতে যূবকের রহস্যজনক মৃত্যু হস্তক্ষেপ নেই দায়িত্বশীলদের «» জেলা পুলিশ চাঁপাইনবাবগঞ্জ’র মাস্টার প্যারেড সম্পন্ন «» দখিনের দুয়ার উম্মোচনে ফরিদগঞ্জে আনন্দ র‍্যালী «» আব্দুল্লাহপুরে এনা পরিবহনের বাস চাপায় মৃত্যু পথযাত্রী নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী সাআ’দ।

রায়পুরে স্কুলের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল

ক্রাইম নিউজ ঢাকা ডেক্সঃ লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগে একটি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে অপসারণের দাবিতে একাধিক বার মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলা পরিষদের সামনে বিদ্যালয়ের বর্তমান ও প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা এ কর্মসূচি পালন করেন। ওই প্রধান শিক্ষক আব্দুর রহিম বিদ্যালয়ের একাধিক ছাত্রীর স্কুলসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক মেসেঞ্জারে অশালীন কথা লেখেন বলে অভিযোগ করেন অসংখ্য ছাত্রী।

গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা ১১টা থেকে দেড় ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা ছাড়া শতাধিক অভিভাবকও অংশ নেন। এ সময় বক্তৃতা দেন প্রাক্তন শিক্ষার্থী হোসাইন মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, হাছান আল মেহেদী, মোঃ মাসুদ, ফাতেমা আক্তার, সাইফুল ইসলাম প্রমুখ। কর্মসূচিতে অংশগ্রহণকারী ব্যক্তিরা বলেন, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রহিম এক ছাত্রীকে অনেক দিন ধরে মেসেঞ্জারে অশালীন কথা লিখে খুদে বার্তা পাঠিয়ে আসছেন। ঘটনাটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশিত হলে অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন। এর আগে তাঁরা বিদ্যালয় মাঠে মানববন্ধন করে ওই শিক্ষকের অপসারণ দাবি করেন। তবে মানববন্ধন করার সময় স্কুল কমিটির সভাপতি বাবুল পাঠান এর হস্তক্ষেপে মানববন্ধনটি বন্ধ হওয়াসহ ছাত্র ছাত্রীদের ডাকে সাড়া দিয়ে মানববন্ধন যোগ দেয়া একজন শিক্ষকের বিরুদ্ধে বিভিন্ন প্রকার অভিযোগ তুলে তাকে দিয়ে প্রধান শিক্ষক রহিম এর কাছে জোরপূর্বক ক্ষমা চাইতে বাদ্য করেন স্কুল কমিটির সভাপতি বাবুল পাঠান।


গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানাযায় প্রধান শিক্ষক রহিম যোগদানের পর থেকেই বিভিন্ন ছাত্রীদেরকে কুপ্রস্তাব দিয়ে থাকেন জানা যায় প্রধান শিক্ষক আব্দুর রহিম ২০১৫ সালে প্রধান শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ পাওয়ার পর থেকেই বিভিন্ন ছাত্র ছাত্রীদের উপর বিভিন্ন প্রকার নোংরা প্রস্তাব দিয়ে আসছে,, কয়েকবার অভিযোগের চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন ভুক্তভোগী পরিবার।

ক্রাইম নিউজ ঢাকার অনুসন্ধানে বেরিয়ে এসেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রধান শিক্ষক রহিমের একটি ফোনালাপে শোনা যায় তিনি নিজের ভুল স্বীকার করে ক্ষমা চাচ্ছে স্কুলটির একজন শিক্ষক এর কাছে। এছাড়াও তিনি শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো চিঠিও পাঠিয়েছে একজন ছাত্রীর ফেসবুক মেসেঞ্জারে।

এবিষয়ে স্থানীয় বাসিন্দারা বলেন ফেসবুক হ্যাক করে যদি কেউ এমন কার্যক্রম করে তবে শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো চিঠি ওই হ্যাকার পেলো কিভাবে।

হ্যাক হওয়ার বিষয়টি সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট উল্লেখ করে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যাক্তি জানান , “নিজের পিঠ বাঁচানোর জন্য এধরনের মিথ্যে কথা বলে আসছেন প্রধান শিক্ষক রহিম। ”

এসকল অপকর্মের ঘটনায় প্রধান শিক্ষক রহিম এর কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান,” আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে একটি কুচক্রীমহল আমি ইতিমধ্যে তিনটি মামলা দায়ের করেছি এই কুচক্রীমহলের বিরুদ্ধে।” তিনি আরো বলেন, আমার ফেসবুক আইডি হ্যাক করে কেউ এই অশালীন কথাগুলো লিখেছে। এই অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন একটি অভিযোগ।

এবিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. সাইফুল হক বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের একটি অভিযোগ পেয়েছি। মানববন্ধনের বিষয়টিও জেনেছি। খোঁজখবর নিয়ে ব্যবস্থা নেব। ঘটনাটি দুঃখজনক।

 

এর আগে গত ২৭ই জানুয়ারি ২০২২ সকালে ওই প্রতিষ্ঠান প্রাঙ্গনে শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন শুরু করলে ওই এলাকার প্রভাবশালী একাধিক ব্যাক্তি আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের উপর বিভিন্নভাবে চাপ প্রয়োগ করে মানববন্ধনটি পন্ড করে দেয় বলে অভিযোগ উঠেছে।

স্থানীয় চেয়ারম্যান ক্রাইম নিউজ ঢাকাকে বলেন আমার কাছে এখনো পর্যন্ত এই ধরনের কোনো লিখিত অভিযোগ আসেনি। লিখিত অভিযোগ আসলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়ে বলেন প্রতিষ্ঠানটিতে আমাদেরও ছেলে-মেয়ে আর আমার ভাতিজা পড়াশোনা করছে। এবিষয়ে প্রতিষ্ঠানটির ম্যানেজিং কমিটির সভাপতির সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, “এই অভিযোগের ভিত্তিতে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। অভিযোগের সত্যতা পেলে তার বিরুদ্ধে নিয়ম মেনে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।”

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ