,


শিরোনাম:
«» তুরাগে গৃহবধু হত্যার অভিযোগে স্বামীর বন্ধু গ্রেফতার «» ভাড়া বাসায় অবস্থান করে স্বর্ণের দোকানে ডাকাতী করতো তারা’ «» ঈশ্বরদীতে ২০০ লিটার মদসহ গ্রেফতার ১ «» ঈশ্বরদীতে নবজাতক হত্যার অভিযোগ সাবেক স্বাস্থ্যকর্মীর আকলিমার বিরুদ্ধে «» সাংবাদিকতার দায় একমাত্র জনসাধারণের কাছে:তিতুমীর «» ঈশ্বরদীতে প্রণোদনার সার-বীজ প্রদানে স্বজনপ্রীতির অভিযোগ প্রকৃত কৃষকদের «» ঈশ্বরদীতে বালু খেকোদের কবলে বিলিন হাজার হেক্টর ফসলি জমি, দিশেহারা কৃষক «» ঠাকুরগাঁওয়ে বিশ্ব মৃত্তিকা দিবস পালিত র‍্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত «» চাঁপাইনবাবগঞ্জ সাবেক এমপি ও জেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদকের বাসভবনে হামলা «» চাঁপাইনবাবগঞ্জ কৃষকলীগের অনুষ্ঠানে সংঘর্ষে যুবলীগ নেতা মিনহাজ আহত

রায়পুরে স্কুলের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল

ক্রাইম নিউজ ঢাকা ডেক্সঃ লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগে একটি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে অপসারণের দাবিতে একাধিক বার মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলা পরিষদের সামনে বিদ্যালয়ের বর্তমান ও প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা এ কর্মসূচি পালন করেন। ওই প্রধান শিক্ষক আব্দুর রহিম বিদ্যালয়ের একাধিক ছাত্রীর স্কুলসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক মেসেঞ্জারে অশালীন কথা লেখেন বলে অভিযোগ করেন অসংখ্য ছাত্রী।

গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা ১১টা থেকে দেড় ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা ছাড়া শতাধিক অভিভাবকও অংশ নেন। এ সময় বক্তৃতা দেন প্রাক্তন শিক্ষার্থী হোসাইন মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, হাছান আল মেহেদী, মোঃ মাসুদ, ফাতেমা আক্তার, সাইফুল ইসলাম প্রমুখ। কর্মসূচিতে অংশগ্রহণকারী ব্যক্তিরা বলেন, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রহিম এক ছাত্রীকে অনেক দিন ধরে মেসেঞ্জারে অশালীন কথা লিখে খুদে বার্তা পাঠিয়ে আসছেন। ঘটনাটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশিত হলে অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন। এর আগে তাঁরা বিদ্যালয় মাঠে মানববন্ধন করে ওই শিক্ষকের অপসারণ দাবি করেন। তবে মানববন্ধন করার সময় স্কুল কমিটির সভাপতি বাবুল পাঠান এর হস্তক্ষেপে মানববন্ধনটি বন্ধ হওয়াসহ ছাত্র ছাত্রীদের ডাকে সাড়া দিয়ে মানববন্ধন যোগ দেয়া একজন শিক্ষকের বিরুদ্ধে বিভিন্ন প্রকার অভিযোগ তুলে তাকে দিয়ে প্রধান শিক্ষক রহিম এর কাছে জোরপূর্বক ক্ষমা চাইতে বাদ্য করেন স্কুল কমিটির সভাপতি বাবুল পাঠান।


গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানাযায় প্রধান শিক্ষক রহিম যোগদানের পর থেকেই বিভিন্ন ছাত্রীদেরকে কুপ্রস্তাব দিয়ে থাকেন জানা যায় প্রধান শিক্ষক আব্দুর রহিম ২০১৫ সালে প্রধান শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ পাওয়ার পর থেকেই বিভিন্ন ছাত্র ছাত্রীদের উপর বিভিন্ন প্রকার নোংরা প্রস্তাব দিয়ে আসছে,, কয়েকবার অভিযোগের চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন ভুক্তভোগী পরিবার।

ক্রাইম নিউজ ঢাকার অনুসন্ধানে বেরিয়ে এসেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রধান শিক্ষক রহিমের একটি ফোনালাপে শোনা যায় তিনি নিজের ভুল স্বীকার করে ক্ষমা চাচ্ছে স্কুলটির একজন শিক্ষক এর কাছে। এছাড়াও তিনি শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো চিঠিও পাঠিয়েছে একজন ছাত্রীর ফেসবুক মেসেঞ্জারে।

এবিষয়ে স্থানীয় বাসিন্দারা বলেন ফেসবুক হ্যাক করে যদি কেউ এমন কার্যক্রম করে তবে শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো চিঠি ওই হ্যাকার পেলো কিভাবে।

হ্যাক হওয়ার বিষয়টি সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট উল্লেখ করে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যাক্তি জানান , “নিজের পিঠ বাঁচানোর জন্য এধরনের মিথ্যে কথা বলে আসছেন প্রধান শিক্ষক রহিম। ”

এসকল অপকর্মের ঘটনায় প্রধান শিক্ষক রহিম এর কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান,” আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে একটি কুচক্রীমহল আমি ইতিমধ্যে তিনটি মামলা দায়ের করেছি এই কুচক্রীমহলের বিরুদ্ধে।” তিনি আরো বলেন, আমার ফেসবুক আইডি হ্যাক করে কেউ এই অশালীন কথাগুলো লিখেছে। এই অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন একটি অভিযোগ।

এবিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. সাইফুল হক বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের একটি অভিযোগ পেয়েছি। মানববন্ধনের বিষয়টিও জেনেছি। খোঁজখবর নিয়ে ব্যবস্থা নেব। ঘটনাটি দুঃখজনক।

 

এর আগে গত ২৭ই জানুয়ারি ২০২২ সকালে ওই প্রতিষ্ঠান প্রাঙ্গনে শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন শুরু করলে ওই এলাকার প্রভাবশালী একাধিক ব্যাক্তি আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের উপর বিভিন্নভাবে চাপ প্রয়োগ করে মানববন্ধনটি পন্ড করে দেয় বলে অভিযোগ উঠেছে।

স্থানীয় চেয়ারম্যান ক্রাইম নিউজ ঢাকাকে বলেন আমার কাছে এখনো পর্যন্ত এই ধরনের কোনো লিখিত অভিযোগ আসেনি। লিখিত অভিযোগ আসলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়ে বলেন প্রতিষ্ঠানটিতে আমাদেরও ছেলে-মেয়ে আর আমার ভাতিজা পড়াশোনা করছে। এবিষয়ে প্রতিষ্ঠানটির ম্যানেজিং কমিটির সভাপতির সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, “এই অভিযোগের ভিত্তিতে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। অভিযোগের সত্যতা পেলে তার বিরুদ্ধে নিয়ম মেনে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।”

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ