,


শিরোনাম:
«» তুরাগে গৃহবধু হত্যার অভিযোগে স্বামীর বন্ধু গ্রেফতার «» ভাড়া বাসায় অবস্থান করে স্বর্ণের দোকানে ডাকাতী করতো তারা’ «» ঈশ্বরদীতে ২০০ লিটার মদসহ গ্রেফতার ১ «» ঈশ্বরদীতে নবজাতক হত্যার অভিযোগ সাবেক স্বাস্থ্যকর্মীর আকলিমার বিরুদ্ধে «» সাংবাদিকতার দায় একমাত্র জনসাধারণের কাছে:তিতুমীর «» ঈশ্বরদীতে প্রণোদনার সার-বীজ প্রদানে স্বজনপ্রীতির অভিযোগ প্রকৃত কৃষকদের «» ঈশ্বরদীতে বালু খেকোদের কবলে বিলিন হাজার হেক্টর ফসলি জমি, দিশেহারা কৃষক «» ঠাকুরগাঁওয়ে বিশ্ব মৃত্তিকা দিবস পালিত র‍্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত «» চাঁপাইনবাবগঞ্জ সাবেক এমপি ও জেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদকের বাসভবনে হামলা «» চাঁপাইনবাবগঞ্জ কৃষকলীগের অনুষ্ঠানে সংঘর্ষে যুবলীগ নেতা মিনহাজ আহত

বশিকপুর ইউনিয়নের হারুন হত্যা মামলায় নিখোঁজ স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা গ্রেফতার

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধিঃ লক্ষ্মীপুরের স্বেচ্ছাসেবকদল নেতা বরকত উল্যাহকে একটি দেশীয় এলজি ও এক রাউন্ড কার্তুজসহ বুধবার (২২ ডিসেম্বর) রাতে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, তিনি সদর উপজেলার বশিকপুর ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশিদ হারুন হত্যার সঙ্গে জড়িত ছিলেন বলে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন। বরকতকে বৃহস্পতিবার (২৩ ডিসেম্বর) বিকেলে লক্ষ্মীপুর আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাত ১১টার দিকে চন্দ্রগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একে ফজলুল হক গ্রেফতার ও জবানবন্দির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ওসি একে ফজলুল হক বলেন, হারুন হত্যাসহ ৮টি মামলার আসামি বরকত। তবে হত্যা মামলার তিনি এজাহারভুক্ত আসামি ছিলেন না। গ্রেফতারের পর ১৬৪ ধারায় আদালতে তিনি হত্যার সঙ্গে জড়িত থাকার ঘটনায় জবানবন্দি দিয়েছেন। তার বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে আরও একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়।

এদিকে বরকতের মা সালেহা বেগম, বড় ভাই সালাহ উদ্দিন ও বোন বিউটি বেগমের দাবি, গত ১৯ ডিসেম্বর (রোববার) রাতে চট্টগ্রাম থেকে আসার পথে ফেনীতে রিজার্ভ গাড়ি থেকে নামিয়ে লক্ষ্মীপুরের পুলিশ পরিচয়ে বরকতকে তুলে নেওয়া হয়। ঘটনার পরপরই মুঠোফোনে বিউটিকে বরকত বিষয়টি জানান। এরপরই তার (বরকত) ফোন বন্ধ হয়ে যায়। মঙ্গলবার (২১ ডিসেম্বর) চন্দ্রগঞ্জ থানায় নিখোঁজ ডায়েরি করতে গেলেও পুলিশ তা নেয়নি। বুধবার (২২ ডিসেম্বর) বিকেলে বরকতের সন্ধান চেয়ে সংবাদ সম্মেলনে করে পরিবার।

অন্যদিকে বুধবার রাতে বশিকপুর ইউনিয়নের কাশিপুর গ্রাম থেকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে বরকতকে গ্রেফতার করা হয় বলে দাবি পুলিশের। এ সময় তার কাছ থেকে একটি দেশীয় তৈরি এলজি ও এক রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করা হয় বলে জানানো হয়েছে।

বরকত বশিকপুর ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও ইউনিয়নের বিরাহিমপুর গ্রামের মৃত সুলতান আহম্মদের ছেলে।

প্রসঙ্গত, গত ৪ আগস্ট রাতে বশিকপুরের আলমপুর গ্রামে চা দোকানে আড্ডা দেওয়ার সময় আওয়ামী লীগ নেতা হারুনকে মুখোশধারীরা কুপিয়ে আহত করে। পরে ঢাকায় নেওয়ার পথে কুমিল্লায় তিনি মারা যান। হত্যার ঘটনায় পরদিন নিহত হারুনের ছেলে আল-আমিন চন্দ্রগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন। ৯ আগস্ট রাতে মামলার অন্যতম আসামি সদর উপজেলার বাঙ্গাখাঁ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গোলাম মাওলাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তখন মাওলার তিনদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ