,


শিরোনাম:
«» রাজধানীর তুরাগে ডোবা থেকে অজ্ঞাত তরুণীর মৃতদেহ উদ্ধার «» উত্তরায় মা দিবস উপলক্ষে ৩০জন রত্নগর্ভা ‘মা’কে সম্মাননা «» উত্তরায় শিনশিন জাপান হাসপাতালে রোগীকে আটক রেখে নয় লাখ টাকা বিল। «» আবদুল আউয়াল ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের পক্ষ থেকে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ «» তুরাগ বাসীসহ দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন কৃষকলীগের সভাপতি মোঃ নাসির উদ্দিন «» চাঁপাইনবাবগঞ্জে সার ডিলারদের অনিয়মে জিম্মি কৃষক ও চাষিরা «» ঢাকা-আশুলিয়া মহাসড়কে গাড়ির চাপায় সাবেক পুলিশ সদস্য নিহত «» চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে প্রশাসনকে কঠোর হওয়ার আহ্বান জানান এমপি হাবিব হাসান। «» মশার অসহ্যকর যন্ত্রণায় তিক্ত তুরাগবাসী, দায়িত্বশীলরা বলছেন অসহায়ত্বের কথা «» তুরাগে মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করাকে কেন্দ্র করে পুলিশের উপর বস্তিবাসীর হামলা। 

শিশু শ্রমিক হত্যার বিচার চেয়ে শ্রমিকদের বিক্ষোভ মিছিল;দাবি মেনে নেওয়ার জন্য ৪৮ ঘন্টার আল্টিমেটাম

মাহমুদুল হাসান আশিক:

রাজধানীর তুরাগ থানাধীন ধউর তুরাগ থানা সংলগ্ন তরী ফ্যাশনের মূল ভবনের সামনে বেলা ১১ঃ৩০ মিনিটের দিকে শিশু শ্রমিক জুয়েল মিয়া হত্যার বিচার চেয়ে শ্রমিকদের মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।এসময় তরী ফ্যাশনের সামনে থেকে থানা রোড পর্যন্ত বিক্ষোভ মিছিল করেন বিভিন্ন ফেডারেশনের শ্রমিক নেতা ও শ্রমিকরা।

এর আগে গত ৪ই অক্টোবর ২০২১ সোমবার তুরাগ থানাধীন ধউর স্কুলের পাশের তরী ফ্যাশনে হত্যার শিকার হন ১৫ বছরের শিশু শ্রমিক জুয়েল মিয়া। এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় মামলা নিয়ে কানামাছি হয় দীর্ঘ ১২/১৩ ঘন্টা। এরপরও মামলার এজহারে সঠিক তথ্য এবং মালিক পক্ষকে আসামি করে মামলা নেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী পরিবার।

শিশু শ্রমিক জুয়েলের মামা জাহিদ হাসান জানান,”আমরা মামলা করতে গেলে পুলিশ প্রথমে অপমৃত্যু মামলা করার জন্য আমাদের উপর প্রেশার ক্রিয়েট করে।এক পর্যায়ে আমার সাথে কথা কাটাকাটি হয় তুরাগ থানর অফিসার ইনচার্জ মেহেদী হাসান এর সাথে।এরই মধ্যে সেখানে সংবাদ কর্মীরা উপস্থিত হন। সাংবাদিকদের উপস্থিতি টের পেয়ে হত্যা মামলা নিতে চায় থানার কর্তৃপক্ষ কিন্তু মামলা নিতে ঘড়িমসি করেন।অত:পর সাংবাদিকরা থানার গেট থেকে বেরিয়ে এলেই মালিকের বিরুদ্ধে মামলা না নিয়ে নিজেদের ইচ্ছেমতো মামলা সাজিয়ে নিয়েছেন।বাংলাদেশে আইন আছে কিন্তু আইনের বিচার নেই। আমরা আমাদের সন্তান হত্যার সুষ্ঠু বিচার চাই।”

হত্যার শিকার শিশু শ্রমিক জুয়েল মিয়ার বাবা মানববন্ধনে বক্তব্য রাখতে গিয়ে বলেন,”আমাকে বিভিন্ন ভাবে হুমকি ধামকি দিয়ে এলাকা ছাড়া করতে চাচ্ছে এই ফ্যাক্টরির মালিক। মাইর খেয়ে সন্তান ও হারালাম এলাকাও ছাড়বো তা হতে পারেনা। আমি আমার একমাত্র সন্তান হত্যার বিচার চাই,ফাঁসি চাই হত্যার সাথে জড়িতদের।”

শিশু শ্রমিক হত্যার বিচারের দাবিতে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে স্বাধীন বাংলা গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশনের সহ-সভাপতি শ্রমিক নেতা আল-কামরান জানান, “তরী প্যাক্যাজিং এ শিশু শ্রমিক হত্যা হয়েছে এর দায় মালিক এড়াতে পারেনা।যেহেতু কারখানায় শ্রমিক হত্যা হয়েছে সেহেতু মালিককে আসামি করতে হবে এবং ৪৮ ঘন্টার মধ্যে মালিকসহ সকল আসামীকে গ্রেফতার করতে হবে।আগামি ৪৮ ঘন্টার মধ্যে আমাদের দাবি মেনে না নিলে আশুলিয়া, উত্তরা,গাজিপুর, নারায়নগঞ্জসহ সারাদেশে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন এর ঘোষণা দেন সংগঠনটির পক্ষ থেকে। এই সময় উক্ত মানববন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন টেক্সটাইল গর্মেন্টস ওয়ার্কাস ফেডারেশনের নেত্রী ডলি আক্তার,গ্রীন বাংলা ফেডারেশনের নেত্রী রুজিনা আক্তার সুমি এবং স্বাধীন বাংলা ফেডারেশনের নেত্রী রেবেকা আক্তারসহ আরও অনেক নেতা কর্মীরা।

মানববন্ধন শেষে এক বিশাল বিক্ষোভ মিছিল বের করেন শ্রমিকরা। বিক্ষোভ মিছিলে তারা শিশু শ্রমিক জুয়েল হত্যার সাথে জড়িত সকল আসামিদের ফাঁসি দাবি করেন।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ