,


শিরোনাম:
«» কক্সবাজার টেকনাফের এডভোকেট আব্দুর রহমান ইয়াবাসহ তুরাগে পুলিশের জালে ধরা। «» জিএম কাদেরের ফোন ছিনতাই করে ২৩ হাজার টাকা বিক্রি, বসুন্ধরা মার্কেট থেকে ৮ দিন পর খোলা ফোন উদ্ধার। «» শেরে-বাংলা নগরে প্রশাসনকে মাসোহারা দিয়েই চলছে সরকারি দপ্তরের গাড়ির তেল চুরি «» উত্তরায় কিশোর গ্যাংয়ের ছিনতাইয়ের কবলে পথচারীরা। «» আব্দুল্লাহপুরের তালাবদ্ধ গরুর সিকল কেটে থানায় এনে চাঁদা আদায় ক্ষুব্দ গরুর মালিক  «» ‘পড়ি বঙ্গবন্ধুর বই, সোনার মানুষ হই ‘-শীর্ষক সেরা পাঠকদের পুরষ্কার বিতরণী «» মহানন্দা নদীতে যূবকের রহস্যজনক মৃত্যু হস্তক্ষেপ নেই দায়িত্বশীলদের «» জেলা পুলিশ চাঁপাইনবাবগঞ্জ’র মাস্টার প্যারেড সম্পন্ন «» দখিনের দুয়ার উম্মোচনে ফরিদগঞ্জে আনন্দ র‍্যালী «» আব্দুল্লাহপুরে এনা পরিবহনের বাস চাপায় মৃত্যু পথযাত্রী নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী সাআ’দ।

ছাতকের পল্লীতে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে তরুণী ধর্ষণ, গ্রেপ্তার-৩

সেলিম মাহবুব, ছাতকঃছাতকের পল্লীতে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে এক তরুণীকে (২১) গণধর্ষণ করা হয়েছে । এঘটনায় তিন লম্পটকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বুধবার উপজেলার ভাতগাওঁ ইউনিয়নের হাসামপুর পয়েন্ট এলাকা থেকে তরুণীকে অপহরন করা হয়। পুলিশ ও স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, বুধবার সকালে ভিকটিম (২১) নিজ বাড়ি থেকে তার নানার বাড়ি যাওয়ার পথে একই ইউনিয়নের বাসিন্দা মতিউর রহমান মতিন (২৬) ও দিলদার হোসেন (২৮) হাসামপুর এলাকায় তাকে অপহরণ করে পার্শ্ববর্তী সিংচাপইড় ইউনিয়নের হবিপুর গ্রামে মতিউর রহমানের চাচাতো বোনের একটি বাংলো ঘরে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। পরে একটি নৌকা দিয়ে ভিকটিমকে তারা একই ইউনিয়নের কামারগাওঁ গ্রামের বিল্লাল হোসেন (২৬) এর বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়। পরে বিল্লাল ও কামরান (২৬) নামের ওই দুই যুবকও তাকে ধর্ষণ করে। এদিকে ভিকটিমকে খুজেঁ না পেয়ে বিভিন্ন জায়গায় খোঁজ করেন তার পরিবারের লোকজন। পরবর্তীতে খবর পেয়ে স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় বিল্লাল হোসেনের বাড়ি থেকে তাকে উদ্ধার করা হয় । এসময় ঘটনার বিষয়টি জানাজানি হলে স্থানীয় লোকজন মতিউর রহমান মতিন ও দিলদার হোসেনকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে। পরবর্তীতে কামারগাওঁ বাজারে অভিযান চালিয়ে বিল্লাল হোসেনকেও গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এঘটনায় ছাতক থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। ছাতক থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ নাজিম উদ্দিন বলেন, মামলার প্রধান তিন আসামি পুলিশের হেফাজতে রয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেপ্তারের প্রক্রিয়া অব্যাহত রয়েছে বলে জানান।
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ