,


শিরোনাম:
«» প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চট্টগ্রামের ঐতিহাসিক পলোগ্রাউন্ডে ২৯টি উন্নয়ন প্রকল্পের শুভ উদ্বোধন করেন-জনসভায় জনসমুদ্রে পরিণত ছিল «» চাঁপাইনবাবগঞ্জসহ রাজশাহী বিভাগের আট জেলায় ধর্মঘট উপেক্ষা করে মাদ্রাসা মাঠে মানুষের ঢল «» ঠাকুরগাঁওয়ে পাক হানাদার মুক্ত দিবস উপলক্ষে র‍্যালি শোভা যাত্রা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত «» ক্ষতিগ্রস্ত ৩৩ দোকান মালিকরা পেলেন প্রধানমন্ত্রীর অনুদান «» যৌতুক না পেয়ে নির্যাতনের অভিযোগ, গৃহবধূকে মারধর «» তুরাগে ১৫০টি দোকানের বিদ্যুৎ বিল মাসে ৭০০ টাকা দেখিয়ে প্রায় ৫ লক্ষ টাকা আত্মসাৎকারী নামধারী নেতা গ্রেফতার। «» তুরাগে আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের নতুন সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন কার্যক্রম শুরু «» তুরাগে ২ বছরের শিশু ধর্ষণ : ধর্ষক মামুন আটক। «» ইদ-ই-মিলাদুন্নবি উপলক্ষে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের নিয়ে দোয়া ও আলোচনা সভার আয়োজন করেছে স্বপ্নালোড়ন বাংলাদেশ «» কক্সবাজার টেকনাফের এডভোকেট আব্দুর রহমান ইয়াবাসহ তুরাগে পুলিশের জালে ধরা।

এ যেন ৩০ টি পরিবারেরি খুশি ম্লান করে দুঃখ নিয়ে আসা বিয়েঃ বৌভাতে যাওয়ার সময় বজ্রপাতে নিহত ১৭

ফাহিম ফরহাদ,চাঁপাইনবাবগঞ্জঃ চাঁপাইনবাবগঞ্জে বৌভাতে যাওয়ার সময় বজ্রপাতে ১৭জন নিহত হয়েছে। চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার সুর্যনারায়নপুর গ্রাম থেকে পাঁকা ইউনিয়নে বৌভাতে যাওয়ার সময় বজ্রপাতে ১৭ জন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছেন অনেকেই। নিহত ও আহতরা একটি ইঞ্জিন চালিত নৌকায় নদী পার হয়ে যাচ্ছিলেন। নৌকায় ৫০ জন যাত্রী বৌভাতে যাওয়ার সময় পথিমধ্যে দক্ষিনপাকা ঘাটে বজ্রপাত হলে ঘটনাস্থলেই ১৬ জন মারা যায়। এঘটনায় আহতদের শিবগঞ্জ উপজেলা কমপ্লেক্স ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়। বুধবার বেলা ১২টার দিকে এঘটনা ঘটে। নিহতদের পরিচয় জানতে সুর্যনারায়নপুরে গিয়েছেন পুলিশ সুপার এ এইচ এম আবদুর রাকিব বিপিএম-পিপিএমসহ শিবগঞ্জ থানা পুলিশের দল বলে জানিয়েছেন শিবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মো. ফরিদ হোসেন। স্থানীয়রা ১৭জন বললেও পুলিশ বলছেন ১৫ জন নিহতের কথা।

পাঁকা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল মালেক জানান, কয়েকদিন আগে বিয়ে হয় পাঁকা ইউনিয়নের মৃত সুলতান আলীর ছেলে হোসেন আলীর মেয়ের। বুধবার দুপুরে বরপক্ষের লোকজন একটি নৌকায় করে বৌভাতে আসছিলো সোহেন আলীর বাড়ি। দুপুর ১২টার দিকে বৃষ্টি শুরু হলে পদ্মা নদীর দক্ষিন পাঁকা ঘাটের একটি ছাউনিতে আশ্রয় নেয় বৌভাতে আসা লোকজন এবং স্থানীয় পাঁকা গ্রামের সহবুলের ছেলে রফিকুল ইসলাম (৫৫)। এসময় বজ্রপাত হলে রফিকুলসহ বর পক্ষের ১৬জনসহ মোট ১৭ জন মারা যায় ঘটনাস্থলেই। ৩/৪জন গুরুতর আহত হলে তাদের হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। তবে কয়েকজন শিশু ছিলো সেখানে। শিশু গুলো সুস্থ আছে। পাঁকা ইউনিয়নের মো. জুয়েল জানান, সদর উপজেলার নারায়নপুর ইউনিয়নের জনতার হাট গ্রামের পাঁচু আলীর ছেলে মো. মামুনের সাথে বিয়ে হয় সোমবার রাতে। মেয়ে ও জামায় কে আনতে বুধবার দুুপুর ১২টার দিকে বৌভাতে যাচ্ছিলেন একটি নৌকায় বরপক্ষের লোকজন। এসময় বজ্রপাত হলে ঘটনাস্থলেই ১৭জন মারা যায়। এর মধ্যে বরপক্ষের ১৬জন এবং স্থানীয় একজন।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ