,


শিরোনাম:
«» উত্তরায় কিশোর গ্যাংয়ের ছিনতাইয়ের কবলে পথচারীরা। «» আব্দুল্লাহপুরের তালাবদ্ধ গরুর সিকল কেটে থানায় এনে চাঁদা আদায় ক্ষুব্দ গরুর মালিক  «» ‘পড়ি বঙ্গবন্ধুর বই, সোনার মানুষ হই ‘-শীর্ষক সেরা পাঠকদের পুরষ্কার বিতরণী «» মহানন্দা নদীতে যূবকের রহস্যজনক মৃত্যু হস্তক্ষেপ নেই দায়িত্বশীলদের «» জেলা পুলিশ চাঁপাইনবাবগঞ্জ’র মাস্টার প্যারেড সম্পন্ন «» দখিনের দুয়ার উম্মোচনে ফরিদগঞ্জে আনন্দ র‍্যালী «» আব্দুল্লাহপুরে এনা পরিবহনের বাস চাপায় মৃত্যু পথযাত্রী নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী সাআ’দ। «» শিবগঞ্জে অস্ত্র ও ককটেল সহ ১৩ মামলার আসামি গ্রেপ্তারে র‍্যাব «» চাঁপাইনবাবগঞ্জে পুলিশ-ম্যাজিস্ট্রেসি কনফারেন্স সম্পন্ন «» ফরিদগঞ্জে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ৮ম শ্রেণির শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ,অভিযুক্ত যুবক আটক

কক্সবাজার উখিয়া শরণার্থী শিবিরে পাহাড় ধসে নিহত ৬ এবং আহত ৪

নুরুল আলম,টেকনাফঃকক্সবাজারের উখিয়ায় শরণার্থী শিবিরে পাহাড় ধসে ৫ রোহিঙ্গাসহ অন্তত ছয়জন নিহত হয়েছেন। একই দুর্ঘটনায় আরও অন্তত ৪ জন আহত হয়েছেন। মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) ভোররাত ও সকালের দিকে পৃথক পৃথক সময়ে এসব পাহাড় ধসের ঘটনা ঘটে যায় বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক (ডিসি) মোহাম্মদ মামুনুর রশীদ) বিস্তারিত উল্লেখ করে প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে উখিয়ার ক্যাম্প-১০ এ পাহাড় ধসের ঘটনায় পাঁচজন মৃত্যু হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন আরও দুজন। মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে বালুখালী ক্যাম্পে এ পাহাড় ধসের ঘটনা ঘটে। একই সময়ে ঢলের পানিতে গোসল করতে নেমে ভেসে গিয়ে এক রোহিঙ্গা শিশুর মৃত্যু হয়। কক্সবাজার শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কার্যালয়ের অতিরিক্ত কমিশনার সামশুদ্দোজা নয়ন এই তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন নিহতরা হলেন- রোহিঙ্গা ক্যাম্প-১০ এর ব্লক জি/৩৮ এর শাহ আলমের স্ত্রী দিল বাহার (৪২), তাদের ছেলে শফিউল আলম(৯), একই ক্যাম্পের মোহাম্মদ ইউসুফের স্ত্রী দিল বাহার (২৫), তাদের ছেলে আব্দুর রহমান (৩) ও মেয়ে আয়েশা সিদ্দিকা (১)। আহতরা হলেন-শাহ আলমের মেয়ে নুর ফাতেমা (১৪) ও ছেলে জানে আলম (৮)। বানের পানিতে ভেসে ক্যাম্প-৮ এ মৃত্যু হয়েছে বাহার নামের এক শিশুর।

তার বিস্তারিত পরিচয় দিতে পারেননি সংশ্লিষ্টরা। কক্সবাজার শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কার্যালয়ের অতিরিক্ত কমিশনার শামশুদ্দোজা নয়ন জানান, সোমবার (২৬ জুলাই) দুপুর থেকে কক্সবাজারে থেমে থেমে ভারী বর্ষণ হচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে রোহিঙ্গা ক্যাম্প-১০ এর ব্লক- জি/৩৭ এ পাহাড় ধসের ঘটনা ঘটে। এতে একই পরিবারের মা-ছেলেসহ দুই, অপর পরিবারে মা-ছেলে-মেয়েসহ তিনজন নিহত হন। প্রথম পরিবারের আরও দুইজন আহত হয়েছে ক্যাম্পে কর্মরত ৮ এপিবিএন অধিনায়ক কক্সবাজার জেলা এসপি) সিহাব কায়সার খান জানান, খবর পেয়ে ১০ নম্বর ক্যাম্পে দায়িত্বরত ৮ এবিপিএনের সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে উদ্ধার কাজ চালান। পরে তাদের সাথে যোগ দেয় অন্যান্য উদ্ধারকারী দল। তাদের উদ্ধারের পরই ক্যাম্প-১০ এর সিআইসির সহযোগিতায় নিহত ও আহতদের পরিচয় শনাক্ত করা হয়। এ ঘটনায় পানবাজার পুলিশ ক্যাম্পে সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়েছে। এ দিকে, পৃথক পৃথক পাহাড় ধসে কক্সবাজার জেলা শাখা) মহেশখালীতে এক কিশোরী নিহত হয়েছে। ঘুমন্ত অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। মঙ্গলবার ভোরের দিকে ছোট মহেশখালী উত্তর সিপাহিরপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত কিশোরীর নাম মোরশেদা আক্তার (১৪)। সে স্থানীয় আনছার হোসেনের মেয়ে। ছোট মহেশখালী ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান জিয়াদ বিন আলী এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেন। পরিবারের বরাত দিয়ে তিনি বলেন, সোমবার সন্ধ্যা থেকে শুরু হওয়া অতিবৃষ্টির পানিতে পাহাড় ধসের ঘটনা ঘটে। এতে পাহাড়ের মাটির আঘাতে আনছারের ঘরের দেয়াল ভেঙে ঘুমন্ত মেয়েটির ওপর পড়ে।

এতে তার মর্মান্তিক মৃত্যু ঘটনা ঘটে গেছে অপরদিকে, টেকনাফের হোয়াইক্যং ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের মনিরঘোনা গ্রামে পাহাড় ধসে রকিম আলী (৪৮) নামের এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। তিনি স্থানীয় মনিরঘোনা গ্রামের মৃত আলী আহমদের ছেলে। হোয়াইক্যং ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ নুর আহমদ আনোয়ারী এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন এবং হ্নীলা ইউনিয়ন ৪নং ওয়ার্ড ওয়ার্ড ছৈয়দ আলমের তিন ছেলে দুই কন্যা পাহাড় ধসে পাঁচ জন মৃত্যু হয়েছে ও অত্র ইউপি চেয়ারম্যান মোহাম্মদ রাসেজ মোহাম্মদ আলী জানান তিনি জানান, রকিম আলীর বাড়ী ভিটা পাহাড়ের পাদদেশে। গত দুদিনের টানা অতিবৃষ্টিত মঙ্গলবার সকাল ৯টার দিকে রকিম আলীর বাড়ী তে হঠাৎ পাহাড় ধসে পড়ে। এতে বাড়ীর অন্য সদস্যদের সঙ্গে রকিম আলী গুরুতর আহত হন। তাকে উদ্ধার করে বালুখালি তুর্কি হাসপাতালে নিলে সেখানে তার মৃত্যু ঘোষণা করেন কর্মরত । পরে খবর পেয়ে টেকনাফ উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোহাম্মদ এরফানুল হক চৌধুরী, হোয়াইক্যং পুলিশ ফাঁড়ি আইসি এসআই মাহামুদুল হাসান মাহবুব, চেয়ারম্যান ও মেম্বাররাসহ প্রশাসনের অন্যান্যরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এ ব্যাপারে টেকনাফ উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ পারভেজ চৌধুরী সংবাদ কর্মী কে বিস্তারিত উল্লেখ করে জানান, অতিবর্ষণে পাহাড় ধসে মারা যাওয়া রকিম আলীর পরিবারকে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সহায়তা দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি পাহাড়ের ওপর বা পাদদেশে বসবাসরতদের নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিতে প্রশাসন কাজ করছে বলে জানিয়েছেন প্রশাসন

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ