,


শিরোনাম:
«» রাজধানীর তুরাগে ডোবা থেকে অজ্ঞাত তরুণীর মৃতদেহ উদ্ধার «» উত্তরায় মা দিবস উপলক্ষে ৩০জন রত্নগর্ভা ‘মা’কে সম্মাননা «» উত্তরায় শিনশিন জাপান হাসপাতালে রোগীকে আটক রেখে নয় লাখ টাকা বিল। «» আবদুল আউয়াল ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের পক্ষ থেকে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ «» তুরাগ বাসীসহ দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন কৃষকলীগের সভাপতি মোঃ নাসির উদ্দিন «» চাঁপাইনবাবগঞ্জে সার ডিলারদের অনিয়মে জিম্মি কৃষক ও চাষিরা «» ঢাকা-আশুলিয়া মহাসড়কে গাড়ির চাপায় সাবেক পুলিশ সদস্য নিহত «» চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে প্রশাসনকে কঠোর হওয়ার আহ্বান জানান এমপি হাবিব হাসান। «» মশার অসহ্যকর যন্ত্রণায় তিক্ত তুরাগবাসী, দায়িত্বশীলরা বলছেন অসহায়ত্বের কথা «» তুরাগে মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করাকে কেন্দ্র করে পুলিশের উপর বস্তিবাসীর হামলা। 

বেড়েই চলেছে নির্যাতনঃরাজধানীর ভাটারায় গৃহকর্মীকে নির্যাতন করেন বাসার মালিক

এস, এম, মনির হোসেন জীবনঃরাজধানীর ভাটারা থানা এলাকা থেকে গৃহকর্মীকে নির্যাতন করার অভিযোগে মূল আসামী ও বাসার মালিককে গ্রেফতার করেছে ডিএমপির ভাটারা থানা পুলিশ। পুলিশ জানান, গ্রেফতারকৃতের নাম-মোহাম্মদ আসাদুর রহমান (৩৯)। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত সাড়ে ১১ টার দিকে রাজধানীর ভাটারা থানার জোয়ার সাহারার এল এম টাওয়ারের একটি ফ্ল্যাট থেকে নির্যাতনকারী গৃহকর্তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এবিষয়ে ভাটারা থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোঃ রফিকুল হক বলেন, গ্রেফতারকৃত মোহাম্মদ আসাদুর রহমানের জোয়ার সাহারার বাসায় কাজ করত ভিকটিম কুলসুমা আক্তার। গত ২০২০ সালের ১২ নভেম্বর থেকে চলতি বছরের ৩০ জুন পর্যন্ত বিভিন্ন সময়ে তাদের বাসার গৃহকর্মী ভিকটিমকে জ্বলন্ত আগুনে লোহার খুন্তি ও রড গরম করে শরীরের বিভিন্ন জায়গায় ছ্যাঁকা দিয়ে ও মারধর করে গুরুতর আহত করে। এতে ভিকটিম অসুস্থ্য হয়ে পড়লে গত ৩০ জুন, ২০২১ সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় ভিকটিমকে তার বোনের বাসায় পাঠিয়ে দেয় বাসার মালিক। তিনি আরও জানান, পরে সংবাদ পেয়ে ভাটারা থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে নির্যাতনকারী বাসার মালিক মোহাম্মদ আসাদুর রহমান (৩৯)কে গ্রেফতার করে। এ বিষয়ে ডিএমপির ভাটারা থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ