,


শিরোনাম:
«» রাজধানীর তুরাগে ডোবা থেকে অজ্ঞাত তরুণীর মৃতদেহ উদ্ধার «» উত্তরায় মা দিবস উপলক্ষে ৩০জন রত্নগর্ভা ‘মা’কে সম্মাননা «» উত্তরায় শিনশিন জাপান হাসপাতালে রোগীকে আটক রেখে নয় লাখ টাকা বিল। «» আবদুল আউয়াল ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের পক্ষ থেকে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ «» তুরাগ বাসীসহ দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন কৃষকলীগের সভাপতি মোঃ নাসির উদ্দিন «» চাঁপাইনবাবগঞ্জে সার ডিলারদের অনিয়মে জিম্মি কৃষক ও চাষিরা «» ঢাকা-আশুলিয়া মহাসড়কে গাড়ির চাপায় সাবেক পুলিশ সদস্য নিহত «» চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে প্রশাসনকে কঠোর হওয়ার আহ্বান জানান এমপি হাবিব হাসান। «» মশার অসহ্যকর যন্ত্রণায় তিক্ত তুরাগবাসী, দায়িত্বশীলরা বলছেন অসহায়ত্বের কথা «» তুরাগে মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করাকে কেন্দ্র করে পুলিশের উপর বস্তিবাসীর হামলা। 

আদালতের ১৪৪/১৪৫ ধারা অমান্য করে দোকানঘর নির্মাণ

নজরুল ইসলাম,শরীয়তপুরঃ
শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলার পূর্ব নাওডোবা ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ড হাজি মোমেন অালি ফরাজীকান্দিতে আদালতের ১৪৪/১৪৫ ধারা অমান্য করে দোকানঘর নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে ছোট ভাই কিনু মোড়লের বিরুদ্ধে ৷
গত ২৪ জুন সরোজমিন ঘুরে এবং কাগজপত্র পর্যালোচনা করে দেখা যায় ৯৯ নং পূর্ব নাওডোবা মৌজার বি অার এস ৪৪০ নং খতিয়ানে ৬০৯৬ নং দাগে ০.৬০ একর জমি পৈতৃক সূত্রে মালিক হয়ে সাজাহান মোড়ল এবং তার ছোট ভাই কিনু মোড়ল ভোগ দখল করে অাসতেছে ৷ কিন্তু জমিটির পাশ দিয়ে অাড়াঅাড়ি ভাবে পাকা সড়ক নির্মাণ হইলে সাজাহান মোড়লের পাশ দিয়ে প্রায় ১.৫০ শতাংশ জমি কমে যায় ৷ এতে সাজাহান মোড়ল রাস্তা বাদ দিয়ে জতটুকু জমি থাকে তা সমান ভাগে ভাগ করতে চাইলে ছোট ভাই কিনু মোড়লের সাথে বিরোধ বাধে ৷ কিনু মোড়ল জমি সমান ভাগে ভাগ করতে রাজি না হইলে নিরুপায় হয়ে অাদালতের শরণাপন্ন হন,এতে অাদালত জমিটির উপর ১৪৪/১৪৫ ধারা জারি করেন ৷ কিন্তু অাদালতের ১৪৪/১৪৫ অমান্য করে কিনু মোড়ল একটি দোকান ঘর নির্মাণ করেছেন ৷
এই বিষয়ে কিনু মোড়ল বলেন-অামি একজন অপরাশনের রুগি ! অামার শরিল বাইপাস সার্জারি করা ৷ অামি কোন ভারি কাজ করতে পারি না ৷ তাই অামি অামার জমির উপর দোকান ঘর তুলে মুদির ব্যবসা করে চারটা ডাল ভাত খেয়ে বাচতে চেয়েছিলাম ৷ কিন্তু অামার বড় ভাইর তা সহ্য হয় নাই ! অামাকে পুলিশ দিয়ে ধরিয়ে দিয়েছে ৷ সে অারও বলেন,অামার ভাই অারো দুই বার ১৪৪/১৪৫ ধারা জারি করিয়ে ছিল,অামি রায় পেয়েছি ৷ এবারও অামি রায় পেয়েছি ৷ অার রায় পেয়ে অামি দোকান ঘর তৈরি করতেছি ৷ কিন্তু কিনু মোড়ল রায়ের কোন কাগজ পত্র দেখাতে পারেননি ৷
এই বিষয়ে জাজিরা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মাহবুবুর রহমান বলেন-অামি অাগামীকাল সরোজমিনে যাব ৷ উভয়কে ডেকে সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করবো ৷ সমাধান না হইলে প্রোয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবো ৷
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ