,


শিরোনাম:
«» রাজধানীর তুরাগে ডোবা থেকে অজ্ঞাত তরুণীর মৃতদেহ উদ্ধার «» উত্তরায় মা দিবস উপলক্ষে ৩০জন রত্নগর্ভা ‘মা’কে সম্মাননা «» উত্তরায় শিনশিন জাপান হাসপাতালে রোগীকে আটক রেখে নয় লাখ টাকা বিল। «» আবদুল আউয়াল ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের পক্ষ থেকে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ «» তুরাগ বাসীসহ দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন কৃষকলীগের সভাপতি মোঃ নাসির উদ্দিন «» চাঁপাইনবাবগঞ্জে সার ডিলারদের অনিয়মে জিম্মি কৃষক ও চাষিরা «» ঢাকা-আশুলিয়া মহাসড়কে গাড়ির চাপায় সাবেক পুলিশ সদস্য নিহত «» চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে প্রশাসনকে কঠোর হওয়ার আহ্বান জানান এমপি হাবিব হাসান। «» মশার অসহ্যকর যন্ত্রণায় তিক্ত তুরাগবাসী, দায়িত্বশীলরা বলছেন অসহায়ত্বের কথা «» তুরাগে মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করাকে কেন্দ্র করে পুলিশের উপর বস্তিবাসীর হামলা। 

এখন ইয়াবা রাজ্য পাচারের নিরাপদ বহন কুরিয়ার সার্ভিসগুলো

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ টেকনাফ-কক্সবাজার সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস এখন ইয়াবা পাচারের নিরাপদ রুটে পরিণত হয়েছে। ইয়াবা পাচার না কি পার্সেল ডেলিভারি এ নিয়ে জনমনে প্রশ্নের গুরপাক খাচ্ছে! দূত চিঠি পত্র ও বিভিন্ন জিনিস গুলো পার্সেল ও জরুরী পণ্যাদি গ্রাহকদের কাছে পৌঁছানোর লক্ষ্যে সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস এর স্বত্বাধিকারী বাংলাদেশ সরকারের ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয় থেকে অনুমোদন নিয়ে সার্ভিস টি চালু করেন। দীর্ঘ বছর ধরে সুনামের সাথে চালিয়ে আসলেও ইদানীং কতিপয় টাকার লোবে ইয়াবা ব্যবসায়ী নিজেরাই সাধু সেজে নিরাপদ ভাবে ইয়াবা পাচারের উদ্দেশ্যে সুন্দরবন কোরিয়ার সার্ভিস লিঃ এর কতিপয় উধর্বর্তন অসাধু কর্মকর্তাদের সাথে মোটা অংকের টাকা বিনিময়ে চুক্তি করে শাখার দ্বায়িত্ব নিয়ে জমজমাটভাবে ইয়াবা পাচার চালিয়ে যাচ্ছে তৎমধ্যে টেকনাফ শহর বাস স্টেশনের পশ্চিম পার্শ্বে আওয়ামীলীগের পার্শে ও আবু ছিদ্দিক মার্কেটের ২য় তলায় অবস্থিত সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস ইয়াবা পাচারের শীর্ষ স্থান দখল করেছে বলে জানা যায়। প্রতিনিয়ত টেকনাফ থেকে পাঠানো বিভিন্ন পার্সেলে নামে বিপুল পরিমাণ ইয়াবা দেশের বিভিন্ন প্রান্তে আইন শৃংখলা বাহিনীর হাতে আটক হচ্ছে। গত ০৮ জুন টেকনাফ শহরসভা ১নং ওয়ার্ড নাইট্যংপাড়া এলাকার বাঁচা মিয়া ও তার পিতাসহ কক্সবাজার কুরিয়ার সার্ভিস থেকে পাঠানো কার্টনভর্তি বৈদ্যুতিক বাতির মোড়কের মধ্যে ইয়াবা ঢুকিয়ে বিভিন্ন ধরনের অভিনব কায়দায় রাজধানী “ঢাকা”শহরে পাচানের সময় পুলিশের হাতে আটক হয়। আটককৃত বাঁচা মিয়া ও তার পিতা কালা মিয়ার তিনি পৌর যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক। যুবদল নেতা শীর্ষ মাদক সন্রাস বাঁচা মিয়াকে আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বংশাল থানার ওসি। ওই সময একি চক্রের ছয়জনকে গ্রেপ্তারের পর গোয়েন্দা পুলিশ জানিয়েছে, মাদক ব্যবসায় নেমেছে বাবা-ছেলে, ভাই-বোনও। আত্মীয় স্বজনরা ক্ষিপ্ত হয়ে যায় আইন শৃংখলা বাহিনীরা সূত্র জানায়,কক্সবাজার থেকে কার্টনভর্তি বৈদ্যুতিক বাতির চালান বুঝে নিতে ঢাকার বংশালে কুরিয়ার সার্ভিসের অফিসে আনুষ্ঠানিকতা সেরে পার্সেল নিয়ে বেরিয়ে পড়েন এক ব্যক্তি। সন্দেহভাজন এই ব্যক্তির খোঁজে একের পর এক হোটেলে তল্লাশি চালান গোয়েন্দারা। পাঁচ নম্বর হোটেলে সন্ধান মেলে তার। পাওয়া যায় কার্টনও।সেটি খুলে দেখা যায়, চালানের ঘোষণা অনুযায়ী বৈদ্যুতিক বাতি আছে। তবে কার্টনের একেবারে নিচের দিকে বাতির মোড়কের মধ্যে পাওয়া যায় পলিথিনে মোড়ানো প্যাকেট। সেগুলো খুলতেই দেখি ইয়াবা। বিভিন্ন ধরনের ইলেকট্রনিক পণ্যের মোড়কের মধ্যে ইয়াবা ঢুকিয়ে কক্সবাজার থেকে ঢাকার ঠিকানায় কুরিয়ার করে দিতেন কার্টনের মালিক হারুন। দু’একদিন পর বিমানে ঢাকায় এসে পার্সেল বুঝে নিয়ে ঢাকার ব্যবসায়ীদের কাছে বিক্রি করতেন মাদক। হারুন জানান, ‘কক্সবাজারে ইলেকট্রিক মালামাল ফেরি করে বিক্রি করি। এখানে যে নষ্ট মালামাক গুলো থাকে সেগুলো কুরিয়ারের মাধ্যমে ইয়াবা আনি। এগুলো ঢাকার পার্টির কাছে হ্যান্ডওভার করে দেই। আমাকে ওরা ২০-৩০ হাজার টাকা দেয় তিনি আরও বলেন টেকনাফ শহর সভা উপরে বাজার বার্মিজ এবং কাপরের দোকানে ও এই ধরনের কুশল বিনিময়ের ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে ইতোপূর্বে ৪২বিজিবি জওয়ানেরা কুরিয়ার সার্ভিসের চালান হতে ইয়াবাসহ ১ জনকে আটক করেছে। ২৯ ডিসেম্বর বিকাল পৌনে ৩টারদিকে টেকনাফ ৪২বিজিবির দমদমিয়া বিওপি চেকপোস্টের কোম্পানী কমান্ডার ও দায়িত্ব প্রাপ্ত জওয়ানেরা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে টেকনাফ হতে কক্সবাজারগামী (চট্টমেট্টো-জ-১১-১৪০৫) যানবাহনে গোপনীয় সংবাদ ভিত্তিতে অভিযানে সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিসের পাঠানো চালানে তল্লাশী চালিয়ে ৩ হাজার ৯শ ৪৫ টি ইয়াবাসহ টেকনাফ পৌর এলাকার আলী আহমদ মার্কেটস্থ হাজী ইয়াকুবের পুত্র মোহাম্মদ ইউনুছকে আটক করে। আটককৃত ব্যক্তির বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট ধারায় মামলা দায়েরের পর টেকনাফ থানায় হস্তান্তর করা হয়েছিল। দীর্ঘদিন ধরে সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস এব্যবসা চালিয়ে আসছে অবশেষে আইন শৃংখলা বাহিনীর হাতে প্রমান একি কায়দায় গেল ১৩ অক্টোবর রাজধানীর মতিঝিলস্থ সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে টেকনাফ থেকে ইয়াবা আনার সময় মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের একটি দল ৫ হাজার ইয়াবাসহ একজনকে গ্রেফতার করে। খাবার পরিবেশনের বাটির মাধ্যমে ওই ইয়াবা পাচার করা হয়েছিল বলে জানিয়েছেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিশ্বাস্ত সূত্র। এইভাবে চালিয়ে যাচ্ছে প্রতিনিয়ত পার্সেলের নামে ইয়াবা পাচার! টেকনাফ-কক্সবাজার কুরিয়ার সার্ভিসে কড়া গোয়েন্দা নজরদারি প্রয়োজন বলে মনে সচেতন মহলের দাবী জানিয়েছে।
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ