,


শিরোনাম:
«» কক্সবাজার টেকনাফের এডভোকেট আব্দুর রহমান ইয়াবাসহ তুরাগে পুলিশের জালে ধরা। «» জিএম কাদেরের ফোন ছিনতাই করে ২৩ হাজার টাকা বিক্রি, বসুন্ধরা মার্কেট থেকে ৮ দিন পর খোলা ফোন উদ্ধার। «» শেরে-বাংলা নগরে প্রশাসনকে মাসোহারা দিয়েই চলছে সরকারি দপ্তরের গাড়ির তেল চুরি «» উত্তরায় কিশোর গ্যাংয়ের ছিনতাইয়ের কবলে পথচারীরা। «» আব্দুল্লাহপুরের তালাবদ্ধ গরুর সিকল কেটে থানায় এনে চাঁদা আদায় ক্ষুব্দ গরুর মালিক  «» ‘পড়ি বঙ্গবন্ধুর বই, সোনার মানুষ হই ‘-শীর্ষক সেরা পাঠকদের পুরষ্কার বিতরণী «» মহানন্দা নদীতে যূবকের রহস্যজনক মৃত্যু হস্তক্ষেপ নেই দায়িত্বশীলদের «» জেলা পুলিশ চাঁপাইনবাবগঞ্জ’র মাস্টার প্যারেড সম্পন্ন «» দখিনের দুয়ার উম্মোচনে ফরিদগঞ্জে আনন্দ র‍্যালী «» আব্দুল্লাহপুরে এনা পরিবহনের বাস চাপায় মৃত্যু পথযাত্রী নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী সাআ’দ।

মোহাম্মদপুরে মশার কয়েল থেকে ঘরে আগুন, শিশুসহ বাবা-মা দগ্ধ

 এস, এম, মনির হোসেন জীবনঃরাজধানীর মোহাম্মদপুর নবোদয় হাইজিংয়ে একটি টিনসেড ঘরে আগুন লেগে শিশুসহ একই পরিবারের তিনজন দগ্ধ হয়েছে। দগ্ধরা হলেন- মো. সোহেল (৩৫), তার স্ত্রী লাবনী আক্তার হাওয়া (২৫) ও ২ বছরের ছেলে সন্তান মো. মোসালিন। তাদের উদ্ধার করে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়েছে। ফায়ার সার্ভিস সদর দপ্তরের ডিউটি অফিসার মাহফুজ রিবেন আজ শনিবার এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন। শুক্রবার দিবাগত রাত পৌনে ৩টার দিকে মোহাম্মদপুর নবোদয় হাইজিংয়ে সি ব্লকের ২ নম্বর টিনসড বাড়িতে এ আগুন লাগার ঘটনাটি ঘটে। প্রতিবেশী রুপা আক্তার সাংবাদিকদের জানান, শুক্রবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে তাদের রুমের ভেতর থেকে আগুন আগুন বলে চিৎকার শুনতে পাই। আমরা ঘুম থেকে উঠে রুমের সামনে গিয়ে দেখি ভেতরে আগুন জ্বলছে। শরীরে আগুন নিয়ে সোহেল ও লাবনী রুমের বাইরে দাঁড়িয়ে ছিল। আর শিশুটি তখন রুমের ভেতরে। ফায়ার সার্ভিসের লোকজনের সহায়তায় রুমের ভেতর থেকে শিশুটিকে বাইরে বের করি। এরপর তিনজনকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। তিনি আর ও জানান, সোহেল বেকার। তার স্ত্রী হাওয়া অন্যের বাসায় গৃহপরিচারিকার কাজ করে। নবোদয় হাউজিংয়ের সি ব্লকের ২নম্বর টিনসড বাড়িতে ভাড়া থাকে। গত দুই মাস আগে তারা এই বাসায় ভাড়া উঠেছে। কিভাবে এই আগুন লেগেছে তা আমরা বলতে পারছি না। তবে মশার কয়েল থেকে আগুন লাগতে পারে। ফায়ার সার্ভিস সদর দপ্তরের ডিউটি অফিসার মাহফুজ রিবেন আগুন লাগার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, আমরা গতরাত ২টা ৪৪ মিনিটে আগুনের সংবাদ পাই। এরপর আমাদের মোহাম্মাদপুর স্টেশনের ৩টি ইউনিট ঘটনাস্থলে যায়। যাওয়ার আগেই আগুন নিভে গেছে। পরিবারের তিনজনকে দগ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়া হয়। তিনি আরও জানান, প্রাথমিকভাবে জানা গেছে গ্যাস লাইন লিকেজ থাকার কারণে রুমের ভেতর গ্যাস জমে ছিল। রাতে মশার কয়েল ধরালে গ্যাসের সংস্পর্শে এ আগুনের সূত্রপাত হয়। এদিকে, শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের দায়িত্বরত চিকিৎসক সাংবাদিকদের জানান, আগুনে সোহেলের শরীরে ৭৫ শতাংশ দগ্ধ, লাবনির ৩০ ও মোসালিন ৮০ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে। তাদের তিনজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ