,


শিরোনাম:
«» দখিনের দুয়ার উম্মোচনে ফরিদগঞ্জে আনন্দ র‍্যালী «» আব্দুল্লাহপুরে এনা পরিবহনের বাস চাপায় মৃত্যু পথযাত্রী নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী সাআ’দ। «» শিবগঞ্জে অস্ত্র ও ককটেল সহ ১৩ মামলার আসামি গ্রেপ্তারে র‍্যাব «» চাঁপাইনবাবগঞ্জে পুলিশ-ম্যাজিস্ট্রেসি কনফারেন্স সম্পন্ন «» ফরিদগঞ্জে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ৮ম শ্রেণির শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ,অভিযুক্ত যুবক আটক «» মুহাম্মদ স: কে নিয়ে বিজেপি নেতাদের কটুক্তির প্রতিবাদে তুরাগ ও উত্তরায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশে অনুষ্ঠিত। «» দুই সন্তান নাজমুল ও সুপারেশ কর্তৃক বৃদ্ধা মা লাঞ্ছিত” থানায় অভিযোগ «» রাজধানীর তুরাগে ডোবা থেকে অজ্ঞাত তরুণীর মৃতদেহ উদ্ধার «» উত্তরায় মা দিবস উপলক্ষে ৩০জন রত্নগর্ভা ‘মা’কে সম্মাননা «» উত্তরায় শিনশিন জাপান হাসপাতালে রোগীকে আটক রেখে নয় লাখ টাকা বিল।

টেকনাফে সাহসী সাংবাদিক সাইফুলের পরিবারের মাঝে ঈদ উপহার

 নুরুল আলম টেকনাফঃকক্সবাজারের টেকনাফে প্রয়াত সাংবাদিক সাইফুল ইসলাম চৌধুরীর পরিবারের পাশে দাঁড়ালেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) পারভেজ চৌধুরী। ৬ মে বৃহস্পতিবার বিকেলে টেকনাফ পৌরসভার সাইতংখিল বাড়ীতে খাদ্য সামগ্রীকসহ ইউএনও পারভেজ চৌধুরী নিজ হাতে খাদ্যসামগ্রী ও আর্থিক সহায়তা তুলে দেন।সাংবাদিক সাইফুলের পরিবারের মাঝে জানা যায়, টেকনাফ পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ডের সাইতংখিল গ্রামের বাসিন্দা ও সাবেক স্যানিটারী ইন্সপেক্টর মরহুম সুলতান আহমদ চৌধুরীর ছেলে সাইফুল ইসলাম চৌধুরী। পেশাগতভাবে সে একজন সাহসী সংবাদকর্মী হিসেবে নিয়োজিত ছিলেন। ২০১৪ সালের ১৬ এপ্রিল সকালে টেকনাফ প্রেসক্লাবের সাবেক প্রচার সম্পাদক, দৈনিক সাগর দেশ ও দূর্নীতির সন্ধানে পত্রিকার প্রতিনিধি সংবাদকর্মী সাইফুল ইসলাম চৌধুরী (৩৮) লিভার জন্ডিসে আক্রান্ত হয়ে নিজ বাসভবে এই পৃথিবী থেকে বিদায় নেন । মৃত্যুকালে সে বৃদ্ধা মা, স্ত্রী, একমাত্র কন্যা, বোন, সহকর্মীসহ অসংখ্য আত্মীয়-স্বজন ও গুণগ্রাহী রেখে যান। পারিবারিক অবস্থা ভালো না হওয়ায় মানবতার জীবনযাপন করে আসছিলেন তার পরিবার। হতদরিদ্র পরিবারের কথা নিয়ে ইউএনওর সঙ্গে দৈনিক প্রথম আলোর টেকনাফ প্রতিনিধি ও টেকনাফ সাংবাদিক ইউনিটির উপদেষ্টা গিয়াস উদ্দিন ও নাফ রেডিও সাংবাদিক সাইফুদ্দিন মোহাম্মদ মামুনের সঙ্গে আলাপচারিতায় একজন সাংবাদিক ও সাবেক সরকারি কর্মকর্তা ছেলে সাইফুল ইসলামের পরিবারের কথাটি উঠে আসে। তারই সূত্র ধরে, কালবিলম্ব না করে ইউএনও পারভেজ চৌধুরী অসহায়ত্ব, শারীরিক অক্ষমতা ও কষ্টের দিনযাপন করা পরিবারের কাছে ছুটে যান। এসময় তার সঙ্গে ছিলেন-উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও)মো সিফাত বিন রহমান, টেকনাফ সাংবাদিক ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক নুরুল হোসাইন, দপ্তর ও প্রচার সম্পাদক সাংবাদিক সাইফুদ্দীন মোহাম্মদ মামুন ও ব্যবসায়ী বন্ধু হারুন অর রশিদ প্রমূখ। এসময় সাংবাদিক সাইফুলের মা খতিজা বেগম (৫৫) ও সাইফুলের ১০ বছর বয়সী একমাত্র মেয়ে সাবরিন ইসলামের হাতে ৫ হাজার টাকার পাশাপাশি চাল ১০ কেজি,ডাল ২ কেজি, ছোলা ২ কেজি,চিনি ৩কেজি, লবণ ২ কেজি, তেল ২ লিটার, খেজুর ২ কেজি, আলু ৪ কেজি, সেমাই ১ কেজি, নুডুলস ২ প্যাকেট, মাস্ক ১ বক্স, সাবান ৫ টি, স্যানিটাইজার ৩টি নিজ হাতে তুলে দেন। সাইফুলের মা খতিজা বেগম বলেন, আমি একজন সাবেক সহকারী কর্মকর্তার স্ত্রী ও সাংবাদিক সাইফুল ইসলাম চৌধুরীর মা হিসেবে আজ গর্ববোধ করছি। তাঁর সহকর্মীদের সহযোগিতায় আজ ইউএনও সাহেব নিজে খাদ্য সামগ্রী ও নগদ আর্থিক সহায়তাসহ আমার বাড়ীতে আশায় আমি খুবই আনন্দিত। নিঃস্বার্থ বান সহকর্মী আছে বলেই সাংবাদিকদের পরিবারের কেহ না কেহ খোঁজখবর রাখবে বলে আশা করছি। আমার ছেলেকে স্মরণ করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ঈদ উপহার দিতে আসায় আমরা ইউএনও সাহেবের প্রতি চিরকৃতজ্ঞ। টেকনাফ সাংবাদিক ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক নুরুল হোসাইন বলেন, মানবিক কিছু কর্মকর্তা আছে বলে এ সমাজটিকে রয়েছে। একজন সাংবাদিকের ঘরেঘরে খাদ্য সামগ্রী ও নগদ আর্থিক সহায়তা নিয়ে ছুটে যাওয়ায় আমি ব্যক্তিগত ও সংগঠনের তরফ থেকে অভিবাদন জানাচ্ছি। ইউএনও পারভেজ চৌধুরী বলেন, প্রয়াত সাংবাদিক সাইফুলের পরিবারের কথা চিন্তা করে আমার নিজ উদ্যোগে খাদ্যসামগ্রী ও নগদ অর্থ তুলে দিয়েছি। এ রকম সকল অসহায়দের পার্শ্বে দাড়ানোর জন্য আমি সকলের কাছে অনুরোধ করছি। সাইফুলের মা ও মেয়েকে সর্বাত্মক সহযোগিতার পাশাপাশি তার জরাজীর্ণ ঘরটিকে দুই কক্ষের ভালো মানের ঘর করে দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ