,


শিরোনাম:
«» রাজধানীর তুরাগে ডোবা থেকে অজ্ঞাত তরুণীর মৃতদেহ উদ্ধার «» উত্তরায় মা দিবস উপলক্ষে ৩০জন রত্নগর্ভা ‘মা’কে সম্মাননা «» উত্তরায় শিনশিন জাপান হাসপাতালে রোগীকে আটক রেখে নয় লাখ টাকা বিল। «» আবদুল আউয়াল ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের পক্ষ থেকে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ «» তুরাগ বাসীসহ দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন কৃষকলীগের সভাপতি মোঃ নাসির উদ্দিন «» চাঁপাইনবাবগঞ্জে সার ডিলারদের অনিয়মে জিম্মি কৃষক ও চাষিরা «» ঢাকা-আশুলিয়া মহাসড়কে গাড়ির চাপায় সাবেক পুলিশ সদস্য নিহত «» চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে প্রশাসনকে কঠোর হওয়ার আহ্বান জানান এমপি হাবিব হাসান। «» মশার অসহ্যকর যন্ত্রণায় তিক্ত তুরাগবাসী, দায়িত্বশীলরা বলছেন অসহায়ত্বের কথা «» তুরাগে মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করাকে কেন্দ্র করে পুলিশের উপর বস্তিবাসীর হামলা। 

কাউন্সিলর ডিএম শামীরের পিএস কানন, ডিবির হাতে গ্রেফতার

এস,এম,মনির হোসেন জীবনঃরাজধানীর উত্তরার দক্ষিণখান থেকে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন ৫০ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর দেওয়ান মোহাম্মাদ শামিম ওরফে ডিএম শামিমের ব্যক্তিগত সচিব মামুন সিরাজুল কাদের ওরফে কাননকে গ্রেপ্তার করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

গত কাল বুধবার রাতে দক্ষিণখান থানাধীন দেওয়ান বাড়ির ওয়ার্ড কাউন্সিলর কার্যালয় থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। কাননের বিরুদ্ধে, জন্ম ও মৃত্যু সনদ প্রদানের বিনিময়ে অ-নৈতিক অর্থ গ্রহন,এলাকার বিশোর গ্যাং নিয়ন্ত্রন,মাদক কারবারিদের শেল্টার,একাধিক সাংবাদিক নির্যাতনের অভিযোগও রয়েছে তার বিরুদ্ধে। সাম্প্রতিক সংরক্ষিত আসনের নারী কাউন্সিলর জাকিয়া সুলতনা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে কানন সহ চার জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেছেন। কানন ছাড়াও এই মামলার অন্যান্য আসামীরা হলেন- মিলন শেখ, জাহাঙ্গীর আলম ও মো. রাকিব। বর্তমানে মামলাটি ঢাকা মহানগ গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) তদন্ত করছে।

এ বিষয়ে দক্ষিণখান থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শিকদার মোহাম্মদ শামীম হোসেন দৈনিক জনতাকে বলেন, তাকে আমরা গ্রেফতার করিনি,কি মামলায় ডিবি তাকে গ্রেফতার করেছে আমার জানা নেই।
অপরদিকে মামলার বিষয়ে জানতে সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর জাকিয়া সুলতনার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি দৈনিক জনতাকে মুঠোফোনে বলেন,কানন কিভাবে এ্যারেস্ট হয়েছে তা আমার জানা নেই। আসলে কিছু দিন আগে আমি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে একটা মামলা করেছি। সেই মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে কিনা আমি সঠিক জানি না। তবে আপনারা একটু সরেজমিনে তদন্ত করেন,তার বিরুদ্ধে বিস্তর অভিযোগ পাবেন।
এদিকে ডিএম শামীম কাউন্সিলর হওয়ার পরে হটাত বেপরোয়া হয়ে উঠেছে উনার ব্যাক্তিগত সহকারী,এ পি এস. মামুন সিরাজুল কাদের ওরফে (কানন)। তার অপরাধের সংবাদ সংগ্রহে যাওয়ায় একাধিক সাংবাদিক কে নির্যাতনের অভিযোগও রয়েছে কাননের বিরুদ্ধে। সর্বশেষ দৈনিক জনতার তুরাগ উত্তরা প্রতিনিধিকে জুমার নামাজের সময় মসজিদ থেকে তুলে নিয়ে পিটিয়ে কোমরের হাড় ভেঙ্গে দেওয়া হয় এই কাননের নেত্রীত্বেই। এই বিষয়ে বেশ কয়েকটি জাতীয় দৈনিকে ঢালাও করে সংবাদ প্রকাশ করা হলেও বহাল তবিয়তে রয়েছে কানন। কানন গ্রেফতারের পর নানারকম তথ্য আসথে থাকে বিভিন্ন সুত্র থেকে, এর মধ্যে নির্ভর যেগ্য একটি সুত্র জানায়,বিপুল পরিমান মাদক সহ কাননকে গ্রেফতার করেছে ডিবি পুলিশ। আরেকটি সুত্র জানায়,জাকিয়া সুলতানার করা মামলায় তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।
এই বিষয়ে,ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ৫০ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর দেওয়ান মোহাম্মাদ শামিম ওরফে ডিএম,শামীম, দৈনিক জনতাকে বলেন,সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর জাকিয়ার করা একটা ভিত্তিহিন মামলায় ডিবি পুলিশ তাকে নিয়ে গেছে। এখানে মাদকের কোন বিষয় নেই,সঠিক তথ্য বহুল সংবাদ প্রকাশের আবেদন জানান তিনি। তবে নির্যাতনের শিকার এক সাংবাদিকের করা মামলায় জামিনে রয়েছেন কানন।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ