,


শিরোনাম:
«» তুরাগে গৃহবধু হত্যার অভিযোগে স্বামীর বন্ধু গ্রেফতার «» ভাড়া বাসায় অবস্থান করে স্বর্ণের দোকানে ডাকাতী করতো তারা’ «» ঈশ্বরদীতে ২০০ লিটার মদসহ গ্রেফতার ১ «» ঈশ্বরদীতে নবজাতক হত্যার অভিযোগ সাবেক স্বাস্থ্যকর্মীর আকলিমার বিরুদ্ধে «» সাংবাদিকতার দায় একমাত্র জনসাধারণের কাছে:তিতুমীর «» ঈশ্বরদীতে প্রণোদনার সার-বীজ প্রদানে স্বজনপ্রীতির অভিযোগ প্রকৃত কৃষকদের «» ঈশ্বরদীতে বালু খেকোদের কবলে বিলিন হাজার হেক্টর ফসলি জমি, দিশেহারা কৃষক «» ঠাকুরগাঁওয়ে বিশ্ব মৃত্তিকা দিবস পালিত র‍্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত «» চাঁপাইনবাবগঞ্জ সাবেক এমপি ও জেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদকের বাসভবনে হামলা «» চাঁপাইনবাবগঞ্জ কৃষকলীগের অনুষ্ঠানে সংঘর্ষে যুবলীগ নেতা মিনহাজ আহত

বাইপাসে যুবক কর্তৃক অসহায় পরিবারকে হুমকিঃচেয়ারম্যান দিলেন ১০ দিনের নিরাপত্তা

ঈশ্বরদী প্রতিনিধিঃ লালপুর থানার ঈশ্বরদী বাইপাস ষ্টেশনের সংলগ্ন দাসপাড়া এক সংখ্যালঘু পরিবারের বিবাহিত কন্যাকে অনৈতিক কাজের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় বাড়ি ছেড়ে চলে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছে। এঘটনায় ১০ দিনের মধ্যে বাড়ি ছেড়ে না যাওয়ার নিরাপত্তা দিবেন ইউপি চেয়ারম্যান। স্বরেজমিনে ঘটনার বিষয়ে ঈশ্বরদী বাইপাস ষ্টেশনের স;লগ্ন দাসপাড়া শ্রী মনোরঞ্জন এর বাসায় কয়েক জন সংবাদ কর্মী উপস্হিত হয়। এসময় দেখা যায় শ্রী মনোরঞ্জন এর কন্যা তার বাবার বাড়ি হতে ঘরের সমস্ত আসবাবপত্র বের করেছে অন্যত্র চলে যাওয়ার উদ্দেশ্যে। তাৎক্ষণিকভাবে সংবাদ কর্মীদের সাথে দেয়া সাক্ষাৎকারে উঠে আসে ঐ পরিবারের প্রতি মানুষিক চাপ, হুমকি ধামকি ও গ্রাম ছেড়ে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল। ঈশ্বরদী পৌর এলাকার ১ নং ওয়ার্ডে বসবাসকারী মোঃ ইদুল ইমরান হোসেনও ডিস জুয়েল। দরিদ্র মনোরঞ্জনের বিবাহিত কন্যা সুমি রানী দাস আরো জানান সে ইপিজেডে চাকরি করার সুবাদে ইঁদুলের গাড়ীতে যাতায়াত করতো। এর সুবাদে ঈদুল প্রায় সুমি রানী দাসকে উক্তাক্ত ও কুপ্রস্তাব দিত। এতে রাজি না হলে ইমরান, ইদুল, ডিস জুয়েলও তার সাঙ্গপাঙ্গদের সাথে নিয়ে হতদরিদ্র মনোরঞ্জনের বাসায় রাতে যায়। একপর্যায়ে সুমি রানী দাস কে না পেয়ে ঐ রাতেই সংখ্যালঘুদের জনৈক মাতব্বর কে সাসিয়ে যায় সকালের মধ্যে মনোরঞ্জন এর পরিবার যেন এলাকা ছেড়ে অন্যত্র চলে যায়। তারই সুত্র ধরে সংখ্যালঘু পরিবারের মাতব্বর মনোরঞ্জন কে একঘরে করে রাখে এবং বাড়ি ছেড়ে চলে যাওয়ার নির্দেশ দেয়। একপর্যায়ে সকাল আনুমানিক ১১টার দিকে খবর পেয়ে এ সহ সংবাদকর্মীরা মনোরঞ্জন এর বাসায় উপস্থিত হয়ে দেখতে পায় মনোরঞ্জনের বাসার আসবাবপত্র ঘর থেকে বের করে ফেলেছে অন্যত্র চলে যাওয়ার উদ্দেশ্যে। ঘটনার বিস্তারিত জেনে লালপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কে মুঠোফোনে জানালে তিনি তাৎক্ষণিক এবি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুস ছাত্তার কে অবহিত করলে চেয়ারম্যান দ্রুত মনোরঞ্জনের বাসায় উপস্থিত হয়ে মনোরঞ্জন পরিবার কে ১০ দিনের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে যান উপস্থিত সংবাদ কর্মীদের সামনে। এদিকে এই ঘটনাটি এলাকায় চাওড় হলে ইদুল ও ইমরান ঘাঢাকা দিয়েছে।অসহায় পরিবারের প্রতি এমন অন্যায় অত্যাচার করার বিষয়টি এলাকাবাসী দ্রুত ইদুল, ইমরান,ডিস জুয়েল গংদের গ্রেফতারের দাবি তুলেছে।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ