,


শিরোনাম:
«» উত্তরায় কিশোর গ্যাংয়ের ছিনতাইয়ের কবলে পথচারীরা। «» আব্দুল্লাহপুরের তালাবদ্ধ গরুর সিকল কেটে থানায় এনে চাঁদা আদায় ক্ষুব্দ গরুর মালিক  «» ‘পড়ি বঙ্গবন্ধুর বই, সোনার মানুষ হই ‘-শীর্ষক সেরা পাঠকদের পুরষ্কার বিতরণী «» মহানন্দা নদীতে যূবকের রহস্যজনক মৃত্যু হস্তক্ষেপ নেই দায়িত্বশীলদের «» জেলা পুলিশ চাঁপাইনবাবগঞ্জ’র মাস্টার প্যারেড সম্পন্ন «» দখিনের দুয়ার উম্মোচনে ফরিদগঞ্জে আনন্দ র‍্যালী «» আব্দুল্লাহপুরে এনা পরিবহনের বাস চাপায় মৃত্যু পথযাত্রী নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী সাআ’দ। «» শিবগঞ্জে অস্ত্র ও ককটেল সহ ১৩ মামলার আসামি গ্রেপ্তারে র‍্যাব «» চাঁপাইনবাবগঞ্জে পুলিশ-ম্যাজিস্ট্রেসি কনফারেন্স সম্পন্ন «» ফরিদগঞ্জে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ৮ম শ্রেণির শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ,অভিযুক্ত যুবক আটক

পুলিশ দম্পতিকে মারধরঃটঙ্গীতে কাউন্সিলরের ছেলেকে আটকের পর ছেড়ে দিল পুলিশ

এস,এম,মনির হোসেন জীবনঃটঙ্গীতে তুচ্ছ ঘটনার জেরে স্বস্ত্রীক এক পুলিশ সদস্যকে মারধর করায় স্থানীয় ৪৯ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর এর ছেলে সিফাতকে (২০) আটক করেছে পুলিশ। এর কিছুক্ষণ পর কোন রহস্যজনক কারণে ওই কাউন্সিলরের ছেলেকে ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ। এনিয়ে গত দু’ দিন ধরে টঙ্গীর সর্বমহলে নানা ধরনের গুঞ্জন শুরু হয়েছে।অনেক্ই বলছে ঘটনাটি রহস্যজনক। এটি সঠিত ভাবে তদন্ত করলে থলের বিড়াল বেরিয়ে আসবে বলে মনে করছেন টঙ্গীর সচেতন মহল।
রোববার টঙ্গী শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতালে এ ঘটনাটি ঘটে।
হাসপাতাল ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, রোববার দুপুর ১২ টার দিকে গাছা থানার পুলিশ কনস্টেবল রিপন তার স্ত্রীকে নিয়ে চিকিৎসার জন্য টঙ্গী শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতালে যায়। তারা ৩ তলার টিকাদান কেন্দ্রের সামনে গেলে মোছাই করা ফ্লোরে হাটা চলা করার কারনে হাসপাতালে আয়ার সাথে কনস্টেবলের স্ত্রীর তর্কাতর্কি হয়। এ বিষয়ে পুলিশ সদস্য রিপন জিজ্ঞাসাবাদ করলে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির করোনা টিকাদান কেন্দ্রের স্বেচ্ছাসেবক কর্মী সাদিয়ার সাথে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে কাউন্সিলরের ছেলে সিফাত স্ত্রী শিউলী বেগম, ও স্বেচ্ছাসেবক কর্মী সাদিয়া,কনস্টেবল রিপন এর স্ত্রীর ও কনস্টেবল রিপনের উপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে মারধর করে গুরুতর আহত করে। উপায়ন্তর না পেয়ে রিপন পুলিশকে ফোন দিলে টঙ্গী পূর্ব থানার এস,আই জুলহাস উদ্দিন ফোর্সসহ ঘটনাস্থলে পৌছে সিফাতকে আটক করে নিয়ে যায়। আশপাশের লোকজন আহতদের উদ্ধার করে একই হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়। ঘটনার খবর পেয়ে ৪৯ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ফারুক আহম্মেদ ঘটনাস্থলে আসেন এবং হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়কের রুমে বসে উভয় পক্ষের কথা শুনেন। এ ঘটনায় থানায় মামলার প্রক্রিয়া প্রায় শেষ পর্যায়ে। হঠাৎ অজানা কারনে অভিযুক্ত সিফাতকে ছেড়ে দেয় পুলিশ।
এ বিষয়ে টঙ্গী পূর্ব থানার ওসি মো. জাবেদ মাসুদের মুঠোফোনে বারবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি। সে কারণে তার বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ