,


শিরোনাম:
«» রাজধানীর তুরাগে ডোবা থেকে অজ্ঞাত তরুণীর মৃতদেহ উদ্ধার «» উত্তরায় মা দিবস উপলক্ষে ৩০জন রত্নগর্ভা ‘মা’কে সম্মাননা «» উত্তরায় শিনশিন জাপান হাসপাতালে রোগীকে আটক রেখে নয় লাখ টাকা বিল। «» আবদুল আউয়াল ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের পক্ষ থেকে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ «» তুরাগ বাসীসহ দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন কৃষকলীগের সভাপতি মোঃ নাসির উদ্দিন «» চাঁপাইনবাবগঞ্জে সার ডিলারদের অনিয়মে জিম্মি কৃষক ও চাষিরা «» ঢাকা-আশুলিয়া মহাসড়কে গাড়ির চাপায় সাবেক পুলিশ সদস্য নিহত «» চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে প্রশাসনকে কঠোর হওয়ার আহ্বান জানান এমপি হাবিব হাসান। «» মশার অসহ্যকর যন্ত্রণায় তিক্ত তুরাগবাসী, দায়িত্বশীলরা বলছেন অসহায়ত্বের কথা «» তুরাগে মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করাকে কেন্দ্র করে পুলিশের উপর বস্তিবাসীর হামলা। 

গলাচিপায় স্বামীর হাতে স্ত্রী খুন,ঘাতক স্বামী গ্রেফতার

মাজহারুল ইসলাম,গলাচিপাঃ পটুয়াখালী জেলার গলাচিপা উপজেলার পানপট্টি ইউনিয়ন এর ০৩ নং ওয়ার্ডের জয় মানিক গ্রামে জেসমিন নাহার বেলী(৩০) খুন হন। স্বামী মীর নূরজামাল (৩৫),পিতাঃমোঃছোবাহান মীর এর হাতে। আজ ১৭/০৪/২০২১ আনুমানিক সকাল ১০ ঘটিকার সময় মীর নূর জামাল এর বসত বাড়িতে খুনের ঘটনা ঘটে।রতনদী তালতলী ইউনিয়নের ০৬ নং ওয়ার্ডের মোঃ বেল্লাল মাল এর মেয়ে জেসমিন নাহার বেলী এর সাথে মীর নূরজামাল এর ১২ বছর আগে বিয়ে অনুষ্ঠিত হয়। বিয়ের পর থেকেই তাদের মধ্যে মাঝে মধ্যে ঝগড়া বিবাদ লেগেই থাকতো। মৃত জেসমিন নাহার ০৮ মাস বয়সের ০১ ছেলে ও ০৭ বছর বয়সের এক মেয়ে রেখে গেছেন। খুনের বিষয় মেয়ের চাচা গণমাধ্যম কে জানান,সকাল আনুমানিক দশ ঘটিকার সময় আমরা খবর পাই তাদের স্বামী -স্ত্রীর মাঝে গন্ডগোল হইছে।ঘটনাস্থলে এসে দেখি আমাদের মেয়ে আর জীবিত নেই। বিয়ের পর থেকে তাদের সংসারে একটার পর একটা ঝামেলা লেগেই থাকতো।মীর নূর জামাল মাদক,জুয়া সহ বিভিন্ন অপরাধের সাথে জড়িত। আমারা জামাই হিসেবে তাকে বহুবার ভাল করার চেষ্টা করেছি কিন্তু সে কোনভাবেই ভাল হয় নি।লাস্ট পর্যন্ত আমাদের মেয়েকে নিজ হাতে খুন করলো। আমরা এ খুনীর যথাযথ বিচার চাই।হত্যার বিষয় গলাচিপা থানার অফিসার ইনচার্জ এম আর শওকত আনোয়ার গণমাধ্যম কে জানান, দশ ঘটিকার সময় আমরা ঘটনা শোনার পর ঘটনাস্থলে যাই এবং লাশ উদ্ধার ও আসামি কে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসি। লাশ পোস্ট মর্ডাম এর জন্য দ্রুত মর্গে পাঠানোর ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি এবং আসামি কে হত্যা মামলা প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হবে।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ