,


শিরোনাম:
«» কক্সবাজার টেকনাফের এডভোকেট আব্দুর রহমান ইয়াবাসহ তুরাগে পুলিশের জালে ধরা। «» জিএম কাদেরের ফোন ছিনতাই করে ২৩ হাজার টাকা বিক্রি, বসুন্ধরা মার্কেট থেকে ৮ দিন পর খোলা ফোন উদ্ধার। «» শেরে-বাংলা নগরে প্রশাসনকে মাসোহারা দিয়েই চলছে সরকারি দপ্তরের গাড়ির তেল চুরি «» উত্তরায় কিশোর গ্যাংয়ের ছিনতাইয়ের কবলে পথচারীরা। «» আব্দুল্লাহপুরের তালাবদ্ধ গরুর সিকল কেটে থানায় এনে চাঁদা আদায় ক্ষুব্দ গরুর মালিক  «» ‘পড়ি বঙ্গবন্ধুর বই, সোনার মানুষ হই ‘-শীর্ষক সেরা পাঠকদের পুরষ্কার বিতরণী «» মহানন্দা নদীতে যূবকের রহস্যজনক মৃত্যু হস্তক্ষেপ নেই দায়িত্বশীলদের «» জেলা পুলিশ চাঁপাইনবাবগঞ্জ’র মাস্টার প্যারেড সম্পন্ন «» দখিনের দুয়ার উম্মোচনে ফরিদগঞ্জে আনন্দ র‍্যালী «» আব্দুল্লাহপুরে এনা পরিবহনের বাস চাপায় মৃত্যু পথযাত্রী নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী সাআ’দ।

বেপরোয়া হয়ে উঠেছে উত্তরা কামারপাড়ার অবৈধ অটোরিকশা চালকেরা

রিজভী হাসান শান্ত,উত্তরাঃরাজধানীর উত্তরার কামারপাড়া থেকে স্টেশন রোড পর্যন্ত এই সড়কে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে অবৈধ অটোরিকশা চালকেরা। দিন ভর পুলিশের অভিযানে অর্ধশতাধিক অটোরিকশা আটক হলেও বিভিন্ন নামধারী নেতা নেত্রী সহ অসাধু কিছু নামধারী সাংবাদিক পরিচয় দানকারীর সুপারিশ শেষে কিছু রেকার বিল করে ছেড়ে দেওয়া হয় বলে জানান স্থানীয়রা। স্থানীয় বাসিন্দারা আরো জানান এসকল অটোরিকশা বেপরোয়া ভাবে চলাচলের কারণে প্রতিদিন ঘটে সড়ক দুর্ঘটনা আর এই দুর্ঘটনার কবলে পড়তে হয় সাধারন গাড়িচালকসহ ডিউটিরত আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে। এছাড়াও সন্ধ্যার পরপরই স্টেশন রোড থেকে অটোরিকশায় করে কামারপাড়ার দিকে আসা বেশিরভাগ সময়ে যাত্রীদের পড়তে হয় ছিনতাইকারীদের কবলে। এই সড়কে অবৈধ অটোরিকশা গুলোর চলাচলের বিষয়ে জানতে চাইলে স্থানীয় একাধিক ব্যক্তি জানান এলাকার কিছু অসাধু চাঁদাবাজ ও রাজনৈতিক ব্যক্তি সহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কিছু অসাধু কর্মকর্তার নেতৃত্বেই চলছে এ সকল অবৈধ অটোরিকশা। এ বিষয়ে অটো-চালকদের সাথে কথা বলে জানা গেছে স্থানীয় লাইনম্যান সহ কিছু ব্যক্তিকে মেনেজ করে চলে এই সকল অটোরিকশা। আর এ সকল ব্যক্তিকে প্রতিমাসে দিতে হয় ২০০০ হাজার থেকে ৩০০০ হাজার টাকা দেখ শোন করতে। স্থানীয় লাইনম্যানদের কাছে মাসিক মাসোহারা করা শুধু সে সকল অটোরিকশা এগুলোই চলতে পারে।
কামারপাড়া ব্রিজ থেকে স্টেশন রোড পর্যন্ত, মাসিক মাসোহারার বাইরে যে সকল রিক্সা মূল সড়কে উঠে ওঠামাত্রই পুলিশের সহযোগিতা নিয়ে আটক করে ডাম্পিং সহ রেকার বিল করা হয় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এবিষয় নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ট্রাফিক সার্জেন্ট বলেন অবৈধ অটোরিকশার কারণে প্রতিদিন এই সড়কে দীর্ঘ যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। রাজনৈতিক ব্যক্তি সহ স্থানীয় প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার সুদৃষ্টি কামনা করছে স্থানীয় এলাকাবাসী।
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ