,


শিরোনাম:
«» তুরাগে গৃহবধু হত্যার অভিযোগে স্বামীর বন্ধু গ্রেফতার «» ভাড়া বাসায় অবস্থান করে স্বর্ণের দোকানে ডাকাতী করতো তারা’ «» ঈশ্বরদীতে ২০০ লিটার মদসহ গ্রেফতার ১ «» ঈশ্বরদীতে নবজাতক হত্যার অভিযোগ সাবেক স্বাস্থ্যকর্মীর আকলিমার বিরুদ্ধে «» সাংবাদিকতার দায় একমাত্র জনসাধারণের কাছে:তিতুমীর «» ঈশ্বরদীতে প্রণোদনার সার-বীজ প্রদানে স্বজনপ্রীতির অভিযোগ প্রকৃত কৃষকদের «» ঈশ্বরদীতে বালু খেকোদের কবলে বিলিন হাজার হেক্টর ফসলি জমি, দিশেহারা কৃষক «» ঠাকুরগাঁওয়ে বিশ্ব মৃত্তিকা দিবস পালিত র‍্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত «» চাঁপাইনবাবগঞ্জ সাবেক এমপি ও জেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদকের বাসভবনে হামলা «» চাঁপাইনবাবগঞ্জ কৃষকলীগের অনুষ্ঠানে সংঘর্ষে যুবলীগ নেতা মিনহাজ আহত

কক্সবাজার টেকনাফ উখিয়া রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী সহ নতুন করে করোনা শনাক্ত

নুরুল আলম,টেকনাফঃকক্সবাজার দক্ষিণ) সোমবার ১২ এপ্রিল কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের ল্যাবে ৬৪৮ জনের নমুনা টেস্ট করে ৮০ জনের টেস্ট রিপোর্ট ‘পজেটিভ’ পাওয়া গেছে। বাকী ৫৬৮ জনের নমুনা টেস্ট রিপোর্ট ‘নেগেটিভ’ আসে। সোমবার শনাক্ত হওয়া ৮০ জন করোনা রোগীর মধ্যে ৮ জন আগে আক্রান্ত হওয়া পুরাতন রোগীর ফলোআপ টেস্ট রিপোর্ট। ২ জন রোগী চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলার। সোমবার করোনা শনাক্ত হওয়া বাকী ৭০ জনের সকলেই কক্সবাজারের রোগী। তারমধ্যে, যে কোনো অবৈধ কারবারী ও অনুপ্রবেশ কারী শরনার্থী ৩ জন। এছাড়া কক্সবাজার সদর উপজেলায় ৩৪ জন, রামু উপজেলায় ১ জন, জেলা শাখা উখিয়া উপজেলায় ১১ জন, টেকনাফ উপজেলায় ৬ জন, চকরিয়া উপজেলায় ৭ জন, পেকুয়া উপজেলায় ৪ জন এবং মহেশখালী উপজেলার ৪ জন রোগী রয়েছে। এনিয়ে, সোমবার ১২ এপ্রিল ২১পবিত্র রমজান সামনে রেখে আল্লাহ তাআলা হুকুমেও এ পর্যন্ত কক্সবাজার জেলায় করোনা মাঝে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা হলো-মোট ৭ হাজার ২ শত ১২ জন। মোট আক্রান্তদের মাঝে মাঝে শুধু কক্সবাজার সদর উপজেলার রোগী ৩ হাজার ৫৫৩ জন। যা মোট করোনা রোগীর প্রায় অর্ধেক। এরমধ্যে, গত ১১ এপ্রিল পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে জেলায় মৃত্যুবরণ করছে ৮৮ জন। তারমধ্যে, ১০ জন রোহিঙ্গা শরনার্থী। আক্রান্তের তুলনায় মৃত্যুর হার ১’২৫%। এদিকে, গত ১১ এপ্রিল পর্যন্ত কক্সবাজার জেলায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্তদের পরিমাণ বেশি ৬ হাজার ১১৮ জন রোগী সুস্থ হয়েছেন। আক্রান্তের তুলনায় সুস্থতার হার ৮৫’৫৭%।আক্রান্তদের মধ্যে গত ১১ এপ্রিল পর্যন্ত হোম আইসোলেসনে রয়েছেন ৭৩৩ জন, প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেসনে রয়েছেন ১৫৩ জন। তারমধ্যে, কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালের আইসোলেসনে রয়েছেন ৫৬ জন, কক্সবাজার জেলা শাখা রামু উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আইসোলেসনে রয়েছেন ৩ জন, কক্সবাজার শহরের পশ্চিম বাহারছরা ফ্রেন্ডশিপ SARI হাসপাতালে রয়েছেন ১৫ জন, রোহিঙ্গা শরনার্থী ক্যাম্পের অভ্যন্তরে আইসোলেসন সেন্টার সমুহে রয়েছেন স্থানীয় জনগণ ৫৮ জন এবং অনুপ্রবেশ কারী রোহিঙ্গা শরনার্থী রয়েছেন ২১ জন।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ