,


শিরোনাম:
«» কক্সবাজার টেকনাফের এডভোকেট আব্দুর রহমান ইয়াবাসহ তুরাগে পুলিশের জালে ধরা। «» জিএম কাদেরের ফোন ছিনতাই করে ২৩ হাজার টাকা বিক্রি, বসুন্ধরা মার্কেট থেকে ৮ দিন পর খোলা ফোন উদ্ধার। «» শেরে-বাংলা নগরে প্রশাসনকে মাসোহারা দিয়েই চলছে সরকারি দপ্তরের গাড়ির তেল চুরি «» উত্তরায় কিশোর গ্যাংয়ের ছিনতাইয়ের কবলে পথচারীরা। «» আব্দুল্লাহপুরের তালাবদ্ধ গরুর সিকল কেটে থানায় এনে চাঁদা আদায় ক্ষুব্দ গরুর মালিক  «» ‘পড়ি বঙ্গবন্ধুর বই, সোনার মানুষ হই ‘-শীর্ষক সেরা পাঠকদের পুরষ্কার বিতরণী «» মহানন্দা নদীতে যূবকের রহস্যজনক মৃত্যু হস্তক্ষেপ নেই দায়িত্বশীলদের «» জেলা পুলিশ চাঁপাইনবাবগঞ্জ’র মাস্টার প্যারেড সম্পন্ন «» দখিনের দুয়ার উম্মোচনে ফরিদগঞ্জে আনন্দ র‍্যালী «» আব্দুল্লাহপুরে এনা পরিবহনের বাস চাপায় মৃত্যু পথযাত্রী নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী সাআ’দ।

এক সন্ত্রাসী হত্যায় আরেক সন্ত্রাসী গ্রেপ্তার

নুরুল আলম,টেকনাফঃটেকনাফ উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের লেদা নুরালী পাড়ার সন্ত্রাসী ও পাহাড়ী অবৈধ অস্ত্রধারী সন্রাসী খালেক বাহিনীর গডফাদার ইমান হোসেন হত্যা কারি মোঃ ইমরান কে গ্রেপ্তার করেছে টেকনাফ মডেল থানা পুলিশ। গত কাল রাতে টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ হাফিজুর রহমানের নেতৃন্তে একটি পুলিশের অভিযানিক দল ঘটনা স্থলে গিয়ে অভিযান পরিচালনা করে ইমান হোসেন হত্যার অন্যতম খুনের আসামী কবির আহাম্মদের পুত্র মোঃ ইমরান(২৩) কে গ্রেপ্তার করেছেন বলে জানিয়েছেন। আইন শৃংখলা বাহিনীও সামান্য কথা কাটাকাটি কে কেন্দ্র করে গত ১১ এপ্রিল রাত ৯. ৩০ মিনিটের সময় নুরালী পাড়া ২৬ নং ক্যাম্পে (শালবাগান) আই/৯ ব্লকের দোকানের পাশে খালেক ডাকাত গ্রুপের সাথে ইমান হোসেন এর বিভিন্ন বাহিনীর সোর্স সন্দেহ কে কেন্দ্র করে তর্কাতর্কি হয়। একপর্যায়ে খালেক ইমান হোসেন কে ধরালো ছাকু (ছুরি) দিয়ে নির্মম ভাবে যখম করলে, আহত হয়ে মাটিতে পড়ে ছটপট করলে কয়েক রাউন্ড গুলিকরে মৃত্যু নিশ্চিত করে তাকে সহ পাহাড়ের দিকে নিয়ে যেতে চায়েছিলেন । পরে খবর পেয়ে পিতা সহ এলাকার জনসাধারণ চারদিক হতে ঘিরে ফেল্ল্যাই কোন উপায় না দেখে ইমান হোসেন কে রেখে পালিয়ে যায় ডাকাত খালেকের বাহিনী পরে তাকে ঘটনা স্থল হতে মৃত অবস্থায় পুলিশ উদ্ধার করে কক্সবাজার ময়নাতদন্তের জন্য প্রেরণ করেন। এ বিষয়ে টেকনাফ মডেল থানার ওসি মোঃ হাফিজুর রহমান থেকে সরকারি জানতে চাইলে তিনি আজ সোমবার ১২এপ্রিল কক্ষে আলোচনা করা গেল এতে প্রায় বলেন , ঘটনা সংবাদ পাওয়ার সাথে সাথে আমরা ঘটনা স্হলে গিয়ে এক দল পুলিশ সহ তাকে উদ্ধার করতে গিয়েছি এবং ঘটনা স্থল হতে সরাসরি যুক্ত হয়ে অভিযান চালিয়ে ইমান হোসেনের ২য় হত্যা কারি কে ৩০২. ৩৪ ধারা মোতাবেক আইনের আওতায় আনতে সক্ষম হয়েছি। তাকে আইনি প্রক্রীয়া শেষে কক্সবাজার জেলা আদালতে প্রেরন করেছি। তবে সন্ত্রাসী খালেক বাহিনীর সমস্ত বাহিনী কে আটকে করতে টেকনাফ মডেল থানা পুলিশ বাহিনী অভিযান অব্যাহত রেখেছে বলে জানিয়েছে।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ