,


শিরোনাম:
«» রাজধানীর তুরাগে ডোবা থেকে অজ্ঞাত তরুণীর মৃতদেহ উদ্ধার «» উত্তরায় মা দিবস উপলক্ষে ৩০জন রত্নগর্ভা ‘মা’কে সম্মাননা «» উত্তরায় শিনশিন জাপান হাসপাতালে রোগীকে আটক রেখে নয় লাখ টাকা বিল। «» আবদুল আউয়াল ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের পক্ষ থেকে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ «» তুরাগ বাসীসহ দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন কৃষকলীগের সভাপতি মোঃ নাসির উদ্দিন «» চাঁপাইনবাবগঞ্জে সার ডিলারদের অনিয়মে জিম্মি কৃষক ও চাষিরা «» ঢাকা-আশুলিয়া মহাসড়কে গাড়ির চাপায় সাবেক পুলিশ সদস্য নিহত «» চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে প্রশাসনকে কঠোর হওয়ার আহ্বান জানান এমপি হাবিব হাসান। «» মশার অসহ্যকর যন্ত্রণায় তিক্ত তুরাগবাসী, দায়িত্বশীলরা বলছেন অসহায়ত্বের কথা «» তুরাগে মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করাকে কেন্দ্র করে পুলিশের উপর বস্তিবাসীর হামলা। 

সাফারী পার্কে জেব্রার ঘরে নতুন অতিথি!!!

মনির হোসেন জীবনঃ গাজীপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারী পার্কের জেব্রা পরিবারে এক শাবকের জন্ম হয়েছে। বর্তমানে নতুন অতিথিসহ পার্কের জেব্রা পরিবারের সংখ্যা ২৫টিতে দাঁড়ালো। জন্মের কিছু সময় পর থেকেই মা জেব্রা ও সদ্য জন্ম নেওয়া শাবকটিকে নিয়ে বেষ্টনীতে বিচরণ করতে দেখা গেছে। নতুন শাবকের আগমনে জেব্রা পরিবার ছাড়াও পার্ক কর্তৃপক্ষের মধ্যেও তৈরি হয়েছে আনন্দের আবহ। আজ শনিবার সকালে সাংবাদিকদের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানিয়েছেন পার্কের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সহকারী বন সংরক্ষক তবিবুর রহমান। এদিকে, পার্কের বন্য প্রাণী পরিদর্শক সারোয়ার হোসেন সাংবাদিকদেরকে জানান, মা জেব্রা ও শাবক উভয়েই সুস্থ রয়েছে। মা জেব্রাসহ শাবকটি অন্যান্য জেব্রার সঙ্গে বেষ্টনীর বিভিন্ন অংশ ঘুরে বেড়াচ্ছে। মা জেব্রার পুষ্টিমানের কথা বিবেচনায় খাদ্যে পরিবর্তন আনা হয়েছে। জেব্রার প্রধান খাবার ঘাস। বর্তমানে ঘাসের পাশাপাশি মা জেব্রাকে ছোলা, গাজর ও ভূষি দেওয়া হচ্ছে। নিরাপত্তা বিবেচনায় শাবকটি পুরুষ না মাদি তা এখনও জানা যায়নি। সদ্য জন্ম নেওয়া শাবকসহ পার্কটিতে বর্তমানে ২৫টি জেব্রা রয়েছে। সহকারী বন সংরক্ষক তবিবুর রহমান জানান, পার্ক কর্তৃপক্ষের নিবিড় পরিচর্যা এবং করোনাকালে পর্যটকদের অনুপস্থিতিতে পার্কে পশুপাখির নিবির সান্নিধ্যে প্রজননের বেশি সুযোগ পেয়েছে। এজন‌্য তাদের ঘরে বাচ্চার উৎপাদন বেড়েছে। যেমন, করোনাকালে ৭টিসহ গত এক বছরে ৮টি জেব্রা বাচ্চা প্রসব করেছে। এছাড়াও করোনাকালে হরিণ পরিবারে ১২টি, শাম্বার পরিবারে ২টি, কমন ইলান পরিবারে ২টি বাচ্চাসহ কচ্চপ, মূয়র, উটপাখিসহ নানা পশু-পাখির ডেরায় আশাতীত বাচ্চা জন্ম নিয়েছে। ধীরে ধীরে সাফারী পার্কটি প্রাণী জন্মের মধ্য দিয়ে স্বয়ংসম্পূর্ণ হওয়ায় একসময় বিদেশ থেকে প্রাণী আমদানির উপর নির্ভরতা কমে আসবে।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ