,


শিরোনাম:
«» ক্ষতিগ্রস্ত ৩৩ দোকান মালিকরা পেলেন প্রধানমন্ত্রীর অনুদান «» যৌতুক না পেয়ে নির্যাতনের অভিযোগ, গৃহবধূকে মারধর «» তুরাগে ১৫০টি দোকানের বিদ্যুৎ বিল মাসে ৭০০ টাকা দেখিয়ে প্রায় ৫ লক্ষ টাকা আত্মসাৎকারী নামধারী নেতা গ্রেফতার। «» তুরাগে আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের নতুন সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন কার্যক্রম শুরু «» তুরাগে ২ বছরের শিশু ধর্ষণ : ধর্ষক মামুন আটক। «» ইদ-ই-মিলাদুন্নবি উপলক্ষে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের নিয়ে দোয়া ও আলোচনা সভার আয়োজন করেছে স্বপ্নালোড়ন বাংলাদেশ «» কক্সবাজার টেকনাফের এডভোকেট আব্দুর রহমান ইয়াবাসহ তুরাগে পুলিশের জালে ধরা। «» জিএম কাদেরের ফোন ছিনতাই করে ২৩ হাজার টাকা বিক্রি, বসুন্ধরা মার্কেট থেকে ৮ দিন পর খোলা ফোন উদ্ধার। «» শেরে-বাংলা নগরে প্রশাসনকে মাসোহারা দিয়েই চলছে সরকারি দপ্তরের গাড়ির তেল চুরি «» উত্তরায় কিশোর গ্যাংয়ের ছিনতাইয়ের কবলে পথচারীরা।

সুনামগঞ্জে ছুরিকাঘাতে শ্যালক খুনঃদুলাভাই,মা ও বোনসহ গ্রেফতার ৪

মোজাম্মেল আলম ভূঁইয়া-প্রতিনিধি,সুনামগঞ্জঃ সিলেটের সুনামগঞ্জে দুলাভাইয়ের ছুরিকাঘাতে শ্যালকের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। মৃত শ্যালকের নাম- রসিক মিয়া (২৯)। সে সুনামগন্জ জেলার দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার পূর্ব পাগলা ইউনিয়নের দামোধরতপী গ্রামের মৃত মোঃ শফিক মিয়ার ছেলে। গতকাল সোমবার (৫ এপ্রিল) রাত সাড়ে ৯টায় সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শ্যালক রসিক মিয়া মৃত্যু হয়। এঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ অভিযান চালিয়ে রাত ১১টায় ঘাতক দুলাভাই নাইজুল হক (৩৮), সৎ বোন ছামিনা বেগম (২৮), রিনা বেগম (২২) ও সৎ মা নুরুল নেছা (৬০) কে গ্রেফতার করেছে। তাদেরকে আজ মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) সকালে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে বলে জানা গেছে। তবে ঘাতক দুলাভাই নাইজুল হক সিলেটের সুনামগন্জ জেলার ছাতক উপজেলার খারাই গ্রামের জমশেদ আলীর ছেলে। পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে- জেলা দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার দামোধরতপী গ্রামের মৃত শফিক মিয়ার সম্পত্তির ভাগ ভাটোয়ারা নিয়ে দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্ত্রীর সন্তানদের মধ্যে বিরোধ চলছিল। তারই জের ধরে গতকাল সোমবার (৫ এপ্রিল) বিকালে দ্বিতীয় স্ত্রীর ছেলে রসিক মিয়া ও তৃতীয় স্ত্রীর মেয়ে সৎ বোন ছামিনা বেগমের মধ্যে পৈত্তিক সম্পত্তি নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। এঘটনাটি সন্ধ্যায় সৎ বোন ছামিনা বেগম তার স্বামী নাইজুল হককে জানালে সে উত্তেজিত হয়ে ধারালো ছুরি নিয়ে শ্যালক রসিক মিয়ার পেটে আঘাত করলে সে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। পরে এলাকাবাসীর সহযোগীতায় ঘটনাস্থল থেকে আশংকাজনক অবস্থায় শ্যালক রসিক মিয়াকে উদ্ধার করে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করার পর রাত সাড়ে ৯টায় তার মৃত্যু হয়। এঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ রাতেই অভিযান চালিয়ে ঘাতক দুলাভাই নাইজুল হক, সৎ বোন সামিনা বেগম, রিনা বেগম এবং সৎ মা নুরুল নেসাকে গ্রেফতার করে। ওই থানার ওসি কাজী মোঃ মুক্তাদির হোসেন এঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন- শ্যালককে হত্যার ঘটনায় থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে ঘাতক দুলাভাই, দুই সৎ বোন ও মাকে আদালতের মাধ্যমে কারাঘারে পাঠানো হয়েছে।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ