,


শিরোনাম:
«» উত্তরায় কিশোর গ্যাংয়ের ছিনতাইয়ের কবলে পথচারীরা। «» আব্দুল্লাহপুরের তালাবদ্ধ গরুর সিকল কেটে থানায় এনে চাঁদা আদায় ক্ষুব্দ গরুর মালিক  «» ‘পড়ি বঙ্গবন্ধুর বই, সোনার মানুষ হই ‘-শীর্ষক সেরা পাঠকদের পুরষ্কার বিতরণী «» মহানন্দা নদীতে যূবকের রহস্যজনক মৃত্যু হস্তক্ষেপ নেই দায়িত্বশীলদের «» জেলা পুলিশ চাঁপাইনবাবগঞ্জ’র মাস্টার প্যারেড সম্পন্ন «» দখিনের দুয়ার উম্মোচনে ফরিদগঞ্জে আনন্দ র‍্যালী «» আব্দুল্লাহপুরে এনা পরিবহনের বাস চাপায় মৃত্যু পথযাত্রী নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী সাআ’দ। «» শিবগঞ্জে অস্ত্র ও ককটেল সহ ১৩ মামলার আসামি গ্রেপ্তারে র‍্যাব «» চাঁপাইনবাবগঞ্জে পুলিশ-ম্যাজিস্ট্রেসি কনফারেন্স সম্পন্ন «» ফরিদগঞ্জে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ৮ম শ্রেণির শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ,অভিযুক্ত যুবক আটক

তাহিরপুর-বাদাঘাট সড়কে চাঁদাবাজি,দেখার কেউ নেই

প্রতিনিধি,সুনামগঞ্জ: সুনামগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী উপজেলা তাহিরপুর। এখানে রয়েছে বহুল আলোচিত পর্যটন কেন্দ্র শিমুলবাগান, বারেকটিলা, যাদুকাটা নদী, টেকেরঘাট নীলাদ্রী লেক ও টাংগুয়ার হাওর। তাইর টানে প্রতিদিন দেশ-বিদেশ থেকে ছুটে আসছে হাজার হাজার পর্যটক। কিন্তু এসব পর্যটন স্পটে আসা-যাওয়ার সময় তাহিরপুর-বাদাঘাট সড়কের শুকনো রাস্তায় দিতে হচ্ছে চাঁদা। আর এই চাঁদাবাজি বন্ধের জন্য এলাকার ভোক্তভোগীরা সবাই গত ২৩শে ফেব্রুয়ারি তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করে। কিন্তু একমাস পেরিয়ে গেলেও এব্যাপারে নেওয়া হয়নি কোন পদক্ষেপ। এলাকাবাসী ও দায়েরকৃত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়- জেলার তাহিরপুর-বাদাঘাট সড়কের পোছনারঘাট নামকস্থানে ব্রিজের গোড়ার মাটি বর্যার পানিতে সড়ে যায়। কিন্তু সেই জায়গাটি মাটি দিয়ে পুনঃরায় ভরাট করা হয়নি। বাঁশ ও কাঠ দিয়ে ৫হাত মাচাঁ তৈরি করে ব্রিজের গোড়ায় বসানো হয়। আর এই মাচাঁটি পারাপাড় হতে জনপ্রতি ৫টাকা, প্রতি মোটর সাইকেল ১০টাকা, প্রাইভেট কার ২শত টাকা, অটোরিক্সা ২০টাকা, ট্রাক ৫শত টাকা, বাইসাইকেল ১০টাকা হারে চাঁদা প্রতিদিন উত্তোলন করছে উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের সোনাপুর গ্রামের মৃত নাসির মিয়ার ছেলে সোহেল মিয়া ও পাতারগাঁও গ্রামের মোনতা মিয়ার ছেলে মোবারক হোসেনগং। সম্প্রতি এই চাঁদাবাজির নিয়ে একজনের হাত ও পা ভেঙ্গে ফেলা হয়েছে। এনিয়ে দুইগ্রুপের মধ্যে থানায় মামলাও হয়েছে। তারপরও তাহিরপুর-বাদাঘাট সড়কের অবৈধ চাঁদাবাজি বন্ধের জন্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে নেওয়া হয়নি কোন পদক্ষেপ।

ফাইল ছবি

এ ব্যাপারে ঢাকা থেকে আগত পর্যটক মাইনুল ইসলাম, রাইসুল ইসলাম, আল আমিন, আশরাফ আলম ও রাহুল সরকার বলেন- তাহিরপুর-বাদাঘাট সড়কের শুকনো রাস্তা দিয়ে প্রাইভেট কার নিয়ে যাওয়ার পথে পাতারগাঁও নামকস্থানে আমাদের আটক করে চাঁদা চায়। কিসের চাঁদা জিজ্ঞাসা করলে চাঁদাবাজরা জানায় মাটির এই শুকনো রাস্তাটি ইউএনও’র কাছ থেকে লীজ এনেছে। এমন অনিয়ম আমরা এই জীবনে আর দেখিনি,এর প্রতিকার চাই। তাহিরপুর ও বাদাঘাট ইউনিয়নের বাসিন্দা সৌরভ সরকার, প্রলয় রায়, আলী আমজাদ, গৌতম মৈত্র, মোঃ ইসলাম উদ্দিন,মোঃ খেলু মিয়া, মোঃ নুর হোসেন, চাঁন মিয়াসহ আরো অনেকেই বলেন- রাস্তাটি মেরামত না করে সারাবছর অবৈধ ভাবে চাঁদা তুলা হয়। আমরা চাঁদাবাজির অত্যাচার থেকে মুক্তি চাই। এজন্য প্রধানমন্ত্রী সুদৃষ্টি কামনা করছি। বাদাঘাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আপ্তাব উদ্দিন বলেন- উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাহিরপুর-বাদাঘাট সড়কটি রাস্তটি লিজ দিয়েছেন। কত টাকা দিয়ে শুকনো রাস্তাটি লিজ দেওয়া হয়েছে তা আমি জানিনা। এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পদ্মাসন সিংহ বলেন- বর্তমানে রাস্তায় পানি নাই ঠিকআছে কিন্তু ব্রিজের গোড়ায় মেরামত করা হয়েছে। তারপরও ইজারাদারদের সাথে কথা বলে দেখব এব্যাপারে কি করা যায়।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ