,


শিরোনাম:
«» কক্সবাজার টেকনাফের এডভোকেট আব্দুর রহমান ইয়াবাসহ তুরাগে পুলিশের জালে ধরা। «» জিএম কাদেরের ফোন ছিনতাই করে ২৩ হাজার টাকা বিক্রি, বসুন্ধরা মার্কেট থেকে ৮ দিন পর খোলা ফোন উদ্ধার। «» শেরে-বাংলা নগরে প্রশাসনকে মাসোহারা দিয়েই চলছে সরকারি দপ্তরের গাড়ির তেল চুরি «» উত্তরায় কিশোর গ্যাংয়ের ছিনতাইয়ের কবলে পথচারীরা। «» আব্দুল্লাহপুরের তালাবদ্ধ গরুর সিকল কেটে থানায় এনে চাঁদা আদায় ক্ষুব্দ গরুর মালিক  «» ‘পড়ি বঙ্গবন্ধুর বই, সোনার মানুষ হই ‘-শীর্ষক সেরা পাঠকদের পুরষ্কার বিতরণী «» মহানন্দা নদীতে যূবকের রহস্যজনক মৃত্যু হস্তক্ষেপ নেই দায়িত্বশীলদের «» জেলা পুলিশ চাঁপাইনবাবগঞ্জ’র মাস্টার প্যারেড সম্পন্ন «» দখিনের দুয়ার উম্মোচনে ফরিদগঞ্জে আনন্দ র‍্যালী «» আব্দুল্লাহপুরে এনা পরিবহনের বাস চাপায় মৃত্যু পথযাত্রী নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী সাআ’দ।

শালিকাকে অপহরণ করে ধর্ষন

 মোজাম্মেল আলম ভূঁইয়া- প্রতিনিধি,সুনামগঞ্জ: সুনামগঞ্জে আপন শালিকাকে অপহরণ করে ধর্ষনের অভিযোগ উঠেছে দুলাভাইয়ের বিরুদ্ধে। অভিযোক্ত দুলাভাইয়ের নাম- সোলেমান আহমদ (৩২)। সে জেলার জগন্নাথপুর উপজেলার পাটলী ইউনিয়নের ডিগারকুল গ্রামের আবু শামার ছেলে। গতকাল রবিবার (২১শে মার্চ) সন্ধ্যায় আদালতের মাধ্যমে দুলাভাই সোলেমানকে কারাঘারে পাঠিয়েছে পুলিশ। সকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সিলেট জেলার বিশ^নাথ উপজেলার কাশিমপুর গ্রাম থেকে সোলেমানকে গ্রেফতার করা হয়। পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়- প্রায় ৩ বছর আগে জেলার ছাতক উপজেলার ভাতগাঁও ইউনিয়নের ঝিগলী গ্রামের মৃত আব্দুল হামিদের মেয়ে তাহমিনা বেগমের সাথে পারিবারিক ভাবে অনুষ্ঠান করে বিয়ে হয় সোলেমান আহমদের। বিয়ের পর থেকে শশুর বাড়িতেই অবস্থান করতো সোলেমান। এমতাবস্থায় গত ১২ইজানুয়ারী বেড়ানোর কথা বলে অপ্রাপ্ত বয়স্ক শালিকাকে নিয়ে পালিয়ে যায় দুলাভাই সোলেমান। এঘটনার প্রেক্ষিতে স্ত্রী তাহমিনা বেগম বাদী হয়ে তার লম্পট স্বামীর বিরুদ্ধে গত ৩ মার্চ ছাতক থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন। দীর্ঘদিন শালিকাকে নিয়ে পালিয়ে থাকার পর গতকাল রবিবার সকালে বিশ^নাথ থেকে সোলেমান আহমদকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ছাতক থানার এসআই আতিকুল আলম সাংবাদিকদের বলেন- সোলেমানের স্ত্রী তাহমিনা বেগম বাদী হয়ে তার স্বামীর বিরুদ্ধে ছোট বোনকে অপহরণ ও ধর্ষনের মামলা দায়ের করেছেন। আমরা ভিকটিমকে উদ্ধার করে পরিক্ষার জন্য সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছি। আর সোলেমানকে আদালতে মাধ্যমে কারাঘারে পাঠানো হয়েছে।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ