,


শিরোনাম:
«» রাজধানীর তুরাগে ডোবা থেকে অজ্ঞাত তরুণীর মৃতদেহ উদ্ধার «» উত্তরায় মা দিবস উপলক্ষে ৩০জন রত্নগর্ভা ‘মা’কে সম্মাননা «» উত্তরায় শিনশিন জাপান হাসপাতালে রোগীকে আটক রেখে নয় লাখ টাকা বিল। «» আবদুল আউয়াল ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের পক্ষ থেকে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ «» তুরাগ বাসীসহ দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন কৃষকলীগের সভাপতি মোঃ নাসির উদ্দিন «» চাঁপাইনবাবগঞ্জে সার ডিলারদের অনিয়মে জিম্মি কৃষক ও চাষিরা «» ঢাকা-আশুলিয়া মহাসড়কে গাড়ির চাপায় সাবেক পুলিশ সদস্য নিহত «» চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে প্রশাসনকে কঠোর হওয়ার আহ্বান জানান এমপি হাবিব হাসান। «» মশার অসহ্যকর যন্ত্রণায় তিক্ত তুরাগবাসী, দায়িত্বশীলরা বলছেন অসহায়ত্বের কথা «» তুরাগে মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করাকে কেন্দ্র করে পুলিশের উপর বস্তিবাসীর হামলা। 

সুনামগঞ্জে মিথ্যা অপবাদ সইতে না পেয়ে কলেজছাত্র ও গৃহবধুর আত্মহত্যা

মোজাম্মেল আলম ভুঁইয়া- প্রতিনিধি,সুনামগঞ্জ: সুনামগঞ্জের দুই উপজেলায় মিথ্যা অপবাদ সইতে না পেরে এক কলেজ ছাত্র ও এক গৃহবুধ আত্মহত্যা করেছে বলে খবর পাওয়া গেছে। নিহতরা হলেন- কলেজ ছাত্র সাদিকুর রহমান আনান (২২) ও গৃহবধু সুমি আক্তার (২০)। তাদের দুজনের মৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র করে আজ রবিবার (১৪ই মার্চ) দুপুরে থানায় পৃথক ২টি মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে জানাগেছে।পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়- জেলার তাহিরপুর উপজেলার ভাটি তাহিরপুর গ্রামের আব্দুল আহাদের ছেলে কলেজ ছাত্র সাদিকুর রহমান আনান প্রতিদিনের মতো গতকাল শনিবার (১৩ই মার্চ) সন্ধ্যায় তার আপন মামাতো দুই ভাইকে পাইভেট পড়াতে মামা শাহনশাহর বাড়িতে যায়। তারা একই এলাকার বাসিন্দা। কিন্তু কলেজ ছাত্র সাদিকুরের সাথে মামা শাহনশাহর বউয়ের (মামী) অবৈধ সম্পর্ক রয়েছে বলে মামা শাহনশাহ নিজেই অপবাদ দেয়। আর সেই অপবাদ সইতে না পেরে মনে দুঃখে কলেজ ছাত্র সাদিকুর তার নিজ বাড়িতে গিয়ে ঘরের কাঠের ধরনার মাঝে গলায় রশ্মি পেচিয়ে জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। পরে সাদিকুরকে তার বাবা-মা ও আত্মীয়- স্বজনরা ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে দ্রুত উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত বলে ঘোষনা করেন। আপন মামীর সাথে অবৈধ সম্পর্কের ঘটনাকে কেন্দ্র করে কলেজ ছাত্র সাদিকুরের আত্মহত্যার খবর তাৎক্ষনিক ভাবে চারদিকে ছড়িয়ে পড়লে সারা উপজেলা জুড়ে শুরু হয় তোলপাড়। অপরদিকে ধর্মপাশা উপজেলার পাইকুরহাটি ইউনিয়নের লেগুর গ্রামের রহিছ মিয়ার মেয়ে সুমি আক্তার (২০) বাবার বাড়িতে বেড়াতে এসে বসতঘরের ধরনার মাঝে গলায় পড়নের ওড়না পেচিয়ে আত্মহত্যা করে। গত ৫ মাস আগে উপজেলার মধ্যনগর থানার সদর ইউনিয়নের কামউরা গ্রামের সিরাজুল ইসলামের ছেলে রুবেল মিয়া (২৫) সাথে সুমি আক্তারের বিয়ে হয়। কিন্তু সহজ সরল হওয়ার কারণে স্বামীর পরিবার থেকে সব সময় অবহেলিত হয়ে আসছিল গৃহবধু সুমি আক্তার। একারণে সব সময় মর্মাহত থাকতো ওই গৃহবধু। গতকাল শনিবার (১৩ই মার্চ) রাতে স্বামীর বাড়ি
থেকে বাবার বাড়িতে বেড়াতে এসে সবার অগোচরে মনের কষ্ঠে গৃহবধু সুমি
আক্তার আত্মহত্যা করে। তবে পরিবারের লোকজন গৃহবধু সুমি আক্তারের মানসিক
সমস্যা আছে বলে দাবী করেন।
তাহিরপুর ও ধর্মপাশা থানার ওসি আব্দুল লতিফ তরফদার ও দিলোয়ার হোসেন এঘটনার
সত্যতা নিশ্চিত করে জানান- কলেজ ছাত্র সাদিকুর রহমান আনান ও গৃহবধু সুমি
আক্তারের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এব্যাপারে তদন্ত
পূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

##মোজাম্মেল আলম ভূঁইয়া—সুনামগঞ্জ–তারিখ:১৪.০৩.২১ইং—
মোবাইল:০১৭১৫-৬৪৩৮৮৭##

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ