,


শিরোনাম:
«» দখিনের দুয়ার উম্মোচনে ফরিদগঞ্জে আনন্দ র‍্যালী «» আব্দুল্লাহপুরে এনা পরিবহনের বাস চাপায় মৃত্যু পথযাত্রী নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী সাআ’দ। «» শিবগঞ্জে অস্ত্র ও ককটেল সহ ১৩ মামলার আসামি গ্রেপ্তারে র‍্যাব «» চাঁপাইনবাবগঞ্জে পুলিশ-ম্যাজিস্ট্রেসি কনফারেন্স সম্পন্ন «» ফরিদগঞ্জে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ৮ম শ্রেণির শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ,অভিযুক্ত যুবক আটক «» মুহাম্মদ স: কে নিয়ে বিজেপি নেতাদের কটুক্তির প্রতিবাদে তুরাগ ও উত্তরায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশে অনুষ্ঠিত। «» দুই সন্তান নাজমুল ও সুপারেশ কর্তৃক বৃদ্ধা মা লাঞ্ছিত” থানায় অভিযোগ «» রাজধানীর তুরাগে ডোবা থেকে অজ্ঞাত তরুণীর মৃতদেহ উদ্ধার «» উত্তরায় মা দিবস উপলক্ষে ৩০জন রত্নগর্ভা ‘মা’কে সম্মাননা «» উত্তরায় শিনশিন জাপান হাসপাতালে রোগীকে আটক রেখে নয় লাখ টাকা বিল।

টেকনাফ প্রধান সড়কের বেহাল অবস্থায় ভোগান্তিতে যাত্রীরা

 নুরুল আলম,টেকনাফঃকক্সবাজার সড়ক ও জনপথ (সওজ) হ্নীলা ও দমদমিয়া থেকে টেকনাফ পৌরসভার শাপলাচত্তর জিরো পয়েন্ট পর্যন্ট প্রায় ৭ কিঃ মিটার সড়ক একটি মরণ ফাঁদে পরিনত হয়েছে। এ দীর্ঘ সড়কের মধ্যখানে গর্ত এবং পাশের্ব খাদে পরিনত হয়ে যান ও পরিবহন চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়ায় একটি যাত্রীবাহী বাস অন্য একটি বাসকে সাইট দিতে পারে না। ফলে দমদমিয়া, জাহাজঘাট, স্থলবন্দর, উঠনী নাইট্যং শাপলাচত্তর সহ ৮টি স্থানে সড়কের বেহাল অবস্থা দেখা দিয়েছে। এ সড়ক দিয়ে যারা নিয়মিত যাতায়াত ও পরিবহনে নিয়োজিত তারা ছাড়া এ দুঃখ কেউ বুঝবেনা। ভূক্তভোগিদের ভাষ্যমতে টেকনাফ সীমান্ত একটি পর্যটন এলাকা হিসাবে এর গুরুত্ব বেশী হলেও প্রধান সড়কটি এখন অভিভাবকহীন অবস্থায় পড়ে আছে। সড়ক মেরামত ব্যবহার নিয়ম থাকলেও টেকনাফ সড়ক উন্নয়নের প্রতি সড়ক ও জনপখ বিভাগ বিমতামূলব আছরন করেছে। এ অভিযোগ সচেতন মহল ও ভুক্তভোগীদের টেকনাফ কক্সবাজার সাগর উপকূলীয় মেরিন ড্রাইব সড়ক নির্মিত হবার পর অঞ্চলিক প্রধান সড়ক উন্নয়ন এবং সংস্কার কাজ তেমন একটা দেখা যাচ্ছে না। ২০২১ সালে বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে কক্সবাজার লিংক রোড থেকে টেকনাফের হোয়াইক্যং উনচিপ্রাং পর্য্যন্ত সড়ক উন্নয়ন ও সম্প্রসারন, প্রকল্পের কাজ হলেও টেকনাফের ৩০ কিঃ মিটার সড়ক উন্নয়ন কাজ এখনো শুরু হয়নি। সড়ক উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ ধীরগতি, অনিয়ম ও দূনর্ীতির অভিযোগ উঠেছে। সড়ক ও জনপথ বিভাগ সড়ক উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ বাস্তাবায়ন করছেন। কিন্তু ঠিকাদারের সাথে মামা-বাগিনার মতো আচরন থাকায় উন্নয়ন প্রকল্পের কাজের তেমন অগ্রগতি নেই। টেকনাফ একটি পর্যটন ও পৌর শহর। পর্যটন মৌসুমে প্রতিদিন শত শত দুর পাল্লার বাস, পর্যটনবাহী বাস এবং দেশী ও বিদেশী এনজিও সংস্থার গাড়ী যাতায়ত করছে। সকাল ও সন্ধায় দমদমিয়া ও উঠনী নামক স্থানে যানজাট সৃষ্ঠি হয়। টেকনাফ পৌর শহর প্রবেশ দ্বার টেকনাফ উঠনী একটি অতিঝঁকিপূর্ণ সড়ক। পাহাড় ও নাফ-নদীর উপকূলের মধ্যবর্তী উচু নিছু সড়কটি দিয়ে যাত্রীরা ভীতি নিয়ে যাতায়াত করে থাকে। সম্প্রতি উঠনী সড়কে ভারী পরিবহন উটতে গিয়ে সড়কের মধ্যখানে বিকল হলে যানজাট সৃষ্টি হয়। বিকল্প সড়ক বা প্রশাস্থতার অভাবে উঠনীতে এখন নিত্যদিন যানজাট দেখা দেয়। কক্সবাজার সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী খোন্দকার গোলাম মোস্তফা এ প্রসঙ্গে বলেন, বিশ্ব ব্যাংক (এডিবি) অর্থ ছাড় না দেওয়াতে অবশিষ্ট সড়ক উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ বিলম্ব হচ্ছে।
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ