,


শিরোনাম:
«» দখিনের দুয়ার উম্মোচনে ফরিদগঞ্জে আনন্দ র‍্যালী «» আব্দুল্লাহপুরে এনা পরিবহনের বাস চাপায় মৃত্যু পথযাত্রী নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী সাআ’দ। «» শিবগঞ্জে অস্ত্র ও ককটেল সহ ১৩ মামলার আসামি গ্রেপ্তারে র‍্যাব «» চাঁপাইনবাবগঞ্জে পুলিশ-ম্যাজিস্ট্রেসি কনফারেন্স সম্পন্ন «» ফরিদগঞ্জে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ৮ম শ্রেণির শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ,অভিযুক্ত যুবক আটক «» মুহাম্মদ স: কে নিয়ে বিজেপি নেতাদের কটুক্তির প্রতিবাদে তুরাগ ও উত্তরায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশে অনুষ্ঠিত। «» দুই সন্তান নাজমুল ও সুপারেশ কর্তৃক বৃদ্ধা মা লাঞ্ছিত” থানায় অভিযোগ «» রাজধানীর তুরাগে ডোবা থেকে অজ্ঞাত তরুণীর মৃতদেহ উদ্ধার «» উত্তরায় মা দিবস উপলক্ষে ৩০জন রত্নগর্ভা ‘মা’কে সম্মাননা «» উত্তরায় শিনশিন জাপান হাসপাতালে রোগীকে আটক রেখে নয় লাখ টাকা বিল।

বাবা,স্ত্রী ও মেয়েকে হত্যার দায়ের ১ জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড

মোজাম্মেল আলম ভূঁইয়া-সুনামগঞ্জে বাবা, স্ত্রী ও মেয়েকে হত্যার দায়ের এক ব্যক্তিকে যাবজ্জীবন
কারাদন্ড দিয়েছে আদালত। দন্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তির নাম-আলফু মিয়া (৪৮)। সে জেলার দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম পাগলা ইউনিয়নের ব্রাহ্মণগাঁও গ্রামের মৃত আলা উদ্দিনের ছেলে। গতকাল বৃহস্পতিবার (৪ মার্চ)
বিকেলে সুনামগঞ্জ জেলা অতিরিক্ত দায়রা জজ নুরুল আলম মোহাম্মদ নিপু ঘাতক আলফু মিয়াকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড প্রদান করার পর সন্ধ্যায় তাকে কারাঘারে পাঠায় পুলিশ।

আদালত সূত্রে জানা যায়- ২০১৪ সালের ২০শে সেপ্টেম্বর রাতে পারিবারিক কলহের জের ধরে দন্ডপ্রাপ্ত আলফু মিয়া তার স্ত্রী বিউটি বেগম ও মেয়ে আরিফা বেগমকে বেধরক মারধর করে। ওই সময় বাবা আলা উদ্দিন তার
প্রতিবাদ করে। সেজন্য আলফু মিয়া উত্তেজিত হয়ে টিউবওয়েলের হাতল দিয়ে বাবার মাথায় ঘাতক করলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। বাবা আলা উদ্দিনের মৃত্যু কিছুক্ষণ পরেই আহত স্ত্রী বিউটি ও মেয়ে আরিফার মৃত্যু হয়। এঘটনার খবর পেয়ে এলাকার লোকজন ছুটে এসে ঘাতক আলফু মিয়াকে আটক করে থানায় খবর দেয়। পরে পুলিশ এসে আলফু
মিয়াকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যায়।

এঘটনার প্রেক্ষিতে নিহত আলা উদ্দিনের ছেলে শাজাহান মিয়া বাদী হয়ে তার ভাই আলফু মিয়ার নামে থানায় হত্যা মামলা দায়ের করে। পুলিশ এই মামলার দীর্ঘ তদন্ত শেষে ২০১৪ সালের ২৬শে ডিসেম্ভর আদালতে
অভিযোগপত্র দাখিল করে। এই হত্যা মামলার দীর্ঘ শুনানি ও সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে আদালত ঘাতক আলফু মিয়াকে যাবজ্জীবন কারাদন্ডসহ ২০হাজার টাকা অর্থদন্ড করে। জেলা ও দায়রা জজ আদালতের অতিরিক্ত এপিপি এডভোকেট সৈয়দ জিয়াউল
ইসলাম এঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

 

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ