,


শিরোনাম:
«» ঈশ্বরদীতে মাইক্রোবাস-মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে তিনজন নিহত «» টেকনাফে শালবাগান বেপরোয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অপহৃত যুবক উদ্ধার,আসামিরা আটক «» পাকশী রেলওয়ে হাসপাতাল পরিদর্শন করেন বাংলাদেশ রেলওয়ের জিআইবিআর «» ঈশ্বরদী মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রের উদ্বোধনঃমুক্তিযোদ্ধাদের স্বাস্থ্যসেবা প্রদানের লক্ষ্যে পাঁচটি অক্সিজেন সিলিন্ডার প্রদান «» ১১ জনের বিরুদ্ধে হুইপের হয়রানিমূলক মামলার প্রতিবাদে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত «» টেকনাফ সীমান্তে মাদকের ঝড় পুলিশের অভিযানে আলামতসহ আটক ১ «» ট্রেনের ইঞ্জিনে হঠাৎ আগুন ঈশ্বরদীগামী ‘কমিউটার এক্সপ্রেস’ «» টেকনাফে ৬০ হাজার ইয়াবাসহ আটক ২ঃগাড়ীর মালিক পলাতক «» ইয়াবা বিক্রি করছেন বিভিন্ন বেশে!!! «» ১০৭ কেজি ওজনের দুটি গোলপাতা মাছ দেখতে মানুষের ভিড়

চলচ্চিত্রকার আলমগীর’র মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে জোটের শ্রদ্ধা নিবেদন ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

 সেলিম মাহবুব,ছাতকঃ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাবেক সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, প্রয়াত আলমগীর কুমকুমের ৯ম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে শনিবার সকালে বনানী কবরস্থানে পুস্পমাল্য অর্পণ, আলোচনা সভা, মিলাদ মাহফিল, তবারক বিতরণ ও মানবভোজের আয়োজন করে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট কেন্দ্রীয় কমিটি। বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সিনিয়র সহ সভাপতি স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের কন্ঠশিল্পী রফিকুল আলমের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় অংশগ্রহণ করেন সংগঠনের সহ সভাপতি শেখ মো. জাহাঙ্গীর আলম, চিত্রনায়ক সাকিল খান, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ও মুখপাত্র অরুন সরকার রানা, সাংগঠনিক সম্পাদক প্রয়াত আলমগীর কুমকুমের ছেলে রনি কুমকুম, সাংবাদিক সুজন হালদার, জয়দেব রায়, কন্ঠশিল্পী করিম খান, আদিত্য রতন সরকার, মো. শিবলী, নূর মোহাম্মদ, মো. মায়া, মো. অপুসহ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন। এফডিসিতে সংগঠনের কার্যকরী সভাপতি, জোটের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা চিত্রনায়ক আলমগীরের উদ্যোগে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল, মানবভোজে ২৫০প্যাকেট বিরানি বিতরণ করা হয়। বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের কেন্দ্রীয় কার্যকারী সভাপতি জোটের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা চিত্রনায়ক আলমগীর, সাধারণ সম্পাদক অরুন সরকার রানা চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার সহ সহ চলচ্চিত্র অঙ্গণের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গরা উক্ত কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেন। আলোচনা সভায় বক্তারা বলেছেন, আলমগীর কুমকুম জাতির দুঃসময়ে, দুর্দিনে বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বাস্তবায়ন করার জন্য আন্দোলন-সংগ্রাম করে গেছেন। আলমগীর কুমকুম ছিলেন বঙ্গবন্ধুর আদর্শের এবং আওয়ামী লীগের প্রকৃত সৈনিক। তিনি কোন লোভ-লালসার কাছে বিক্রি হননি। আলমগীর কুমকুমের অবদান জাতি কখনো শোধ করতে পারবে না। ছাত্র রাজনীতি থেকে সাংস্কৃতিক অঙ্গণ ও রাজনৈতিক অঙ্গণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন। বক্তারা আলমগীর কুমকুমকে স্বাধীনতা পদক ও একুশে পদক প্রদানের জন্য সরকারের প্রতি জোর দাবী জানান। বক্তারা বলেন, সুসময়ে অনেকেই আছেন দুঃসময়ে তাদের খুঁজেও পাওয়া যায়নি। ত্যাগী নেতাকর্মীদের মূল্যায়ন হওয়া দরকার। আলমগীর কুমকুম দেশের বুদ্ধিজীবী, শিল্পী, সাহিত্যিক, সংস্কৃতিকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ করে বঙ্গবন্ধুর হত্যার বিচার, জাতীয় চারনেতা হত্যার বিচার, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার, আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা, জনগণের ভোট ও ভাতের অধিকার প্রতিষ্ঠায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন। তিনি ছিলেন জননেত্রী শেখ হাসিনার আদর্শের প্রকৃত কর্মী। তিনি ভোগে বিশ্বাসী ছিলেন না। তিনি ছিলেন ত্যাগে বিশ্বাসী। তাছাড়াও বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট, সিলেট জেলা শাখা, চট্টগ্রাম জেলা শাখা, চাঁদপুর জেলা শাখা, খুলনা জেলা শাখা, ময়মনসিংহ জেলা শাখা, সিরাজদিখান শাখাসহ বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের বিভিন্ন শাখা আলমগীর কুমকুমের ৯ম মৃত্যুবার্ষিকী পালন করেছে।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ