,


শিরোনাম:
«» কক্সবাজার টেকনাফের এডভোকেট আব্দুর রহমান ইয়াবাসহ তুরাগে পুলিশের জালে ধরা। «» জিএম কাদেরের ফোন ছিনতাই করে ২৩ হাজার টাকা বিক্রি, বসুন্ধরা মার্কেট থেকে ৮ দিন পর খোলা ফোন উদ্ধার। «» শেরে-বাংলা নগরে প্রশাসনকে মাসোহারা দিয়েই চলছে সরকারি দপ্তরের গাড়ির তেল চুরি «» উত্তরায় কিশোর গ্যাংয়ের ছিনতাইয়ের কবলে পথচারীরা। «» আব্দুল্লাহপুরের তালাবদ্ধ গরুর সিকল কেটে থানায় এনে চাঁদা আদায় ক্ষুব্দ গরুর মালিক  «» ‘পড়ি বঙ্গবন্ধুর বই, সোনার মানুষ হই ‘-শীর্ষক সেরা পাঠকদের পুরষ্কার বিতরণী «» মহানন্দা নদীতে যূবকের রহস্যজনক মৃত্যু হস্তক্ষেপ নেই দায়িত্বশীলদের «» জেলা পুলিশ চাঁপাইনবাবগঞ্জ’র মাস্টার প্যারেড সম্পন্ন «» দখিনের দুয়ার উম্মোচনে ফরিদগঞ্জে আনন্দ র‍্যালী «» আব্দুল্লাহপুরে এনা পরিবহনের বাস চাপায় মৃত্যু পথযাত্রী নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী সাআ’দ।

ঝিনাইদহের পূর্বশত্রুতার জেরে পাকা গ্রামে যুবককে হত্যা, বাড়ীঘর ভাংচুর

মোঃ খোরশেদ আলম, বিশেষ প্রতিনিধি: গ্রাম্য শলিসকে কেন্দ্র করে ঝিনাইদহ সদর উপজেলার পাকা গ্রামে প্রতি পক্ষের হামলায় ইমরান হোসেন (২৩) নামের এক যুবক নিহত হয়েছেন। এঘটনার জের ধরে ৪ টি বাড়ী ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। সোমবার দুপুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সে মারা যায়। নিহত ইমরান হোসেন ঝিনাইদহ সদর উপজেলার পাকা গ্রামের আব্দুল মালেকের ছেলে। স্থানীয়রা জানায়, ওই গ্রামের ইন্তার ছেলে আমিন হোসেন গত ১১ ফেব্রুয়ারি একই গ্রামের টিপুর ছেলে মুস্তাক হোসেন (১১) নামের একটি শিশুকে ফুসলিয়ে ফরিদপুরে নিয়ে যায়। পরে ওই দিন রাতে পরিবারের লোকজন মুস্তাককে উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে এ ঘটনা নিয়ে গত ১৩ ফেব্রুয়ারি পাকা গ্রামে একটি শালিস বসে। সেসময় হাফিজ ও বাতেনের লোকজনের মধ্যে বাকবিতান্ডা শুরু হয়। এক পর্ষায়ে উভয় গ্রুপের ইমরান হোসেন ও জীবনকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। পরে পরিবারের লোকজন তাদেরকে উদ্ধার করে প্রথমে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। ইমরানের অবস্থার অবনতি হলে ফরিদপুর ও পরে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে চিকিৎসাধীন আবস্থায় সোমবার দুপুরে হাফিজ গ্রুপের সর্মথক ইমরান মারা যায়। এ ঘটনায় একই গ্রামের আব্দুল বাতেন, শফিউদ্দীন, আব্দুর রশিদ, আলী কদর ও কামরুজ্জামানের বাড়ীঘর ভাংচুর করা হয়। ঝিনাইদহ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ মিজানুর রহমান জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করা হয় । বর্তমানে পরিস্তিতি স্বাভাবিক রয়েছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ