,


শিরোনাম:
«» রাজধানীর তুরাগে ডোবা থেকে অজ্ঞাত তরুণীর মৃতদেহ উদ্ধার «» উত্তরায় মা দিবস উপলক্ষে ৩০জন রত্নগর্ভা ‘মা’কে সম্মাননা «» উত্তরায় শিনশিন জাপান হাসপাতালে রোগীকে আটক রেখে নয় লাখ টাকা বিল। «» আবদুল আউয়াল ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের পক্ষ থেকে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ «» তুরাগ বাসীসহ দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন কৃষকলীগের সভাপতি মোঃ নাসির উদ্দিন «» চাঁপাইনবাবগঞ্জে সার ডিলারদের অনিয়মে জিম্মি কৃষক ও চাষিরা «» ঢাকা-আশুলিয়া মহাসড়কে গাড়ির চাপায় সাবেক পুলিশ সদস্য নিহত «» চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে প্রশাসনকে কঠোর হওয়ার আহ্বান জানান এমপি হাবিব হাসান। «» মশার অসহ্যকর যন্ত্রণায় তিক্ত তুরাগবাসী, দায়িত্বশীলরা বলছেন অসহায়ত্বের কথা «» তুরাগে মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করাকে কেন্দ্র করে পুলিশের উপর বস্তিবাসীর হামলা। 

পুলিশ পরিচয় দিয়ে যুবককে হ্যান্ডকাফ লাগিয়ে ৫০হাজার টাকা দাবি

ঈশ্বরদী  প্রতিনিধিঃ প্রত্যক্ষদর্শী ও থানা সূত্রে জানা যায়, ঈশ্বরদীতে ফাঁদে ফেলে পুলিশ পরিচয়ে মিশন আলী নামে এক ব্যক্তি কাছ থেকে অর্থ ও মুঠোফোন হাতিয়ে নেওয়া চক্রের চার সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ । গতকাল (১৪ ই ফেব্রুয়ারি) রবিবার দুপুর ১:৩০ সময় ঈশ্বরদী শহরের পৌর ২নং ওয়ার্ড পিয়ারাখালীর জনৈক বরকি বাবুর বাসা থেকে তাদের আটক করে ঈশ্বরদী থানার তদন্ত ওসি অরবিন্দ সরকার, এস আই জাকির হোসেন, এ এস আই মনসুর আলী প্রতারক চক্র কারীদের আটক করেন। আটককৃতরা হলেন ঈশ্বরদীর মাদক সম্রাজ্ঞী সীমা খাতুন,( ৪৫) তার মেয়ে লিমা খাতুন, (১৫)বরিশালের গৌরনদী থানার মো. রিয়াজ উদ্দিন(২৮) ও কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার তুষার আহমেদ(২৫) জানা গেছে রিয়াজ উদ্দিন ও তুষার আহমেদ দুজনায় ঈশ্বরদী রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পের ম্যাক্স কোম্পানির রিয়াজউদ্দিন সুপারভাইজার তুষার আহমেদ। পুলিশ জানান, গত শনিবার সন্ধ্যায় এক বন্ধুর প্রলোভনে পরে নারী সঙ্গমে জন্য মিশন আলী পিয়ারাখালীর এলাকায় মাদক সম্রাট বরকি বাবুর বাড়িতে আসে। সেখানে একটি কক্ষে জনৈক এক তরুণীর সঙ্গে তাকে আপত্তিকর ছবি ও ভিডিও ধারণ করা হয়। একপর্যায়ে একজন নিজেকে পুলিশ পরিচয় দিয়ে মিশন হাতে হ্যান্ডকাপ লাগিয়ে দেয় বলে নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন জানান। মারধরের পর ৫০ হাজার টাকা দিলে তাকে ছেড়ে দেওয়ার কথা জানান মিশন কে । অতঃপর অপারগতা জানালে মিশনের কাছে থাকা নগদ ১৭০০ টাকা ও স্মার্টফোনটি কেড়ে নেয় প্রতার চক্র । পরে ছবি ও ভিডিও মুছে ফেলার শর্তে মিশনের কাছ থেকে আরও ১০ হাজার টাকা নিয়ে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। এই ব্যাপারে ঈশ্বরদী থানার তদন্ত ওসি অরবিন্দ সরকারের সঙ্গে মুঠোফোনে একাধিকবার ফোন দিলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি এই ঘটনায় মিশন আলী সকালে বিষয়টি ঈশ্বরদী থানায় জানান। পুলিশ বিষয়টি আমলে নিয়ে। দুপুর আনুমানিক১:৩০ সময় ওই বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ৪জনকে আটক করে বলে ঈশ্বরদী থানার নবাগত অফিসার ইনচার্জওসি আসাদুজ্জামান জানান। মিশনের সঙ্গে প্রতারণার ঘটনার মামলার প্রস্তুতি চলছে। চক্রের অন্যদেরও খুব দ্রুত ধরা হবে বলে জানিয়েছেন। উল্লেখ্য যে এলাকাবাসীর মধ্যে গুঞ্জন রয়েছে প্রতারক চক্রের হাতে পুলিশের এই হ্যান্ডকাপ কোথায় থেকে আসলো।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ