,


শিরোনাম:
«» রাজধানীর তুরাগে ডোবা থেকে অজ্ঞাত তরুণীর মৃতদেহ উদ্ধার «» উত্তরায় মা দিবস উপলক্ষে ৩০জন রত্নগর্ভা ‘মা’কে সম্মাননা «» উত্তরায় শিনশিন জাপান হাসপাতালে রোগীকে আটক রেখে নয় লাখ টাকা বিল। «» আবদুল আউয়াল ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের পক্ষ থেকে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ «» তুরাগ বাসীসহ দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন কৃষকলীগের সভাপতি মোঃ নাসির উদ্দিন «» চাঁপাইনবাবগঞ্জে সার ডিলারদের অনিয়মে জিম্মি কৃষক ও চাষিরা «» ঢাকা-আশুলিয়া মহাসড়কে গাড়ির চাপায় সাবেক পুলিশ সদস্য নিহত «» চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে প্রশাসনকে কঠোর হওয়ার আহ্বান জানান এমপি হাবিব হাসান। «» মশার অসহ্যকর যন্ত্রণায় তিক্ত তুরাগবাসী, দায়িত্বশীলরা বলছেন অসহায়ত্বের কথা «» তুরাগে মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করাকে কেন্দ্র করে পুলিশের উপর বস্তিবাসীর হামলা। 

সুনামগঞ্জে পিয়ান নদীতে ব্রিজ না থাকায় ৮ গ্রামের দূর্ভোগ

মোজাম্মেল আলম ভূঁইয়া-হাওরাঞ্চল প্রতিনিধি,সুনামগঞ্জ: সুনামগঞ্জের পিয়ান নদীতে একটি ব্রিজ নির্মাণের দাবী দীর্ঘদিনের হলেও এলাকাবাসীর সেই দাবী আজ পর্যন্ত পূরণ হয়নি। যার ফলে ওই নদীর দুই তীরে বসবাসকারী দুই উপজেলার ৮ গ্রামের ছাত্রছাত্রী ও ব্যবসায়ীরাসহ হাজার হাজার মানুষকে প্রতিদিন ঝুকি নিয়ে, বাঁশে তৈরি একটি ভেলা দিয়ে নদীটি পারাপার
হতে হচ্ছে। স্বাধীনতার দীর্ঘ ৫০বছর পেরিয়ে গেলেও ছোট এই পিয়ান নদীতে একটি ব্রিজ নির্মাণ না হওয়ার কারণে সবার মনে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে। এলাকাবাসী জানায়- জেলার দিরাই উপজেলার রফিনগর ইউনিয়নের বাংলাবাজারের পাশ
দিয়ে বয়েগেছে এই পিয়ান নদী।

তবে এই নদীর একতীরে রয়েছে দিরাই উপজেলার আনোয়ারপুর,বাংলাবাজার,কিত্তারগাঁও,মির্জাপুর গ্রাম। আর অন্য তীরে
পাশর্^বর্তী জামালগঞ্জ উপজেলার লক্ষিপুর,উদয়পুর,নাজিমপুর,হটামাড়া গ্রাম রয়েছে। তাই দুই উপজেলার ৮ গ্রামের মানুষ তাদের প্রয়োজনীয় কাজ-কর্মের জন্য প্রতিদিন পিয়ান নদীটি পারাপার হতে হয়। ছোট এই পিয়ান নদীতে সারা বছরই
পানি থাকে। একারণ বছরের অগ্রহায়ণ মাস থেকে বৈশাখ মাস পর্যন্ত বাঁশের তৈরি ভেলা দিয়ে আর বর্যাকালে ছোট ডিঙ্গি নৌকার মাধ্যমে নদীটি পারাপার হতে হয়। এছাড়া নদীটি পারাপারে আর কোন বিকল্প যাতায়াত ব্যবস্থা নেই। যার ফলে
স্কুল-কলেজে পড়–য়া ছাত্রছাত্রীসহ এলাকাবাসীর কষ্ঠের আর সীমা নেই।

কিন্তু তাদের এই দূর্ভোগ দেখার কেউ নেই। এব্যাপারে দিরাই রফিনগর ইউনিয়নের বাংলাবাজার ও জামালগঞ্জ উপজেলার লক্ষিপুর গ্রামের ব্যবসায়ী মহসিন মিয়া,আবুল হোসেন,দিন ইসলাম,রজব আলী,আবুল কালামসহ আরো অনেকেই দুঃখ প্রকাশ করে বলেন- সারাদেশ উন্নয়নের জোয়ারে ভাসছে কিন্তু এখানকার মানুষ এখনও রয়েছে অবহেলিত। ছোট এই পিয়ান নদীতে
ব্রিজ না থাকার কারণে ভেলা দিয়ে নদী পারাপার হতে গিয়ে প্রায়ই দূঘর্টনা ঘটে। তাই পিয়ান নদীতে দ্রুত একটি ব্রিজ নির্মাণের জন্য বর্তমান সরকারের কাছে জোর দাবী জানাচ্ছি।

রফিনগর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান রেজোয়ান খান বলেন- এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের দূর্ভোগ লাগবের জন্য দুই বছর আগে আবেদন করেছিলাম পিয়ান নদীতে ব্রিজ নির্মাণের জন্য। কিন্তু এব্যাপারে কেউ কোন গুরুত্ব দেয়নি। সেজন্য
দিরাই ও জামালগঞ্জ উপজেলার ৮গ্রামের মানুষকে চরম দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। দিরাই উপজেলা স্থানীয় সরকার বিভাগের প্রকৌশলী ইফতেকার হোসেন বলেন- পিয়ান নদীতে স্থানীয় সরকার বিভাগের কোন ধরণের এলাইনমেন্ট না থাকার কারণে
ব্রিজ নির্মাণ করা সম্ভব হচ্ছে না।

 

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ