,


শিরোনাম:
«» ক্ষতিগ্রস্ত ৩৩ দোকান মালিকরা পেলেন প্রধানমন্ত্রীর অনুদান «» যৌতুক না পেয়ে নির্যাতনের অভিযোগ, গৃহবধূকে মারধর «» তুরাগে ১৫০টি দোকানের বিদ্যুৎ বিল মাসে ৭০০ টাকা দেখিয়ে প্রায় ৫ লক্ষ টাকা আত্মসাৎকারী নামধারী নেতা গ্রেফতার। «» তুরাগে আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের নতুন সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন কার্যক্রম শুরু «» তুরাগে ২ বছরের শিশু ধর্ষণ : ধর্ষক মামুন আটক। «» ইদ-ই-মিলাদুন্নবি উপলক্ষে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের নিয়ে দোয়া ও আলোচনা সভার আয়োজন করেছে স্বপ্নালোড়ন বাংলাদেশ «» কক্সবাজার টেকনাফের এডভোকেট আব্দুর রহমান ইয়াবাসহ তুরাগে পুলিশের জালে ধরা। «» জিএম কাদেরের ফোন ছিনতাই করে ২৩ হাজার টাকা বিক্রি, বসুন্ধরা মার্কেট থেকে ৮ দিন পর খোলা ফোন উদ্ধার। «» শেরে-বাংলা নগরে প্রশাসনকে মাসোহারা দিয়েই চলছে সরকারি দপ্তরের গাড়ির তেল চুরি «» উত্তরায় কিশোর গ্যাংয়ের ছিনতাইয়ের কবলে পথচারীরা।

চাঁপাইনবাবগঞ্জে বিআরটিএ ‘র ১২ দালাল আটক

ফাহিম ফরহাদ, চাঁপাইনবাবগঞ্জে বিআরটিএ’র দাদালসহ ১২ জনকে আটক করেছে জেলা গোয়েন্দা শাখা ডিবি পুলিশ’র একটি চৌকশ দল। আটককৃতরা ড্রাইভিং লাইসেন্স আবেদনকারীদের জাল শিক্ষাগত সনদ সরবরাহকারী ৪ জন ও ৮জন লাইসেন্স আবেদন’র দালাল আবেদনকারী। ২০জানুয়ারি ২০২১খ্রি. বুধবার দুপুুর পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করে গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল। আটককৃতরা হল- জালসনদ সরবরাহকারী (তথ্যের ভিত্তিতে আটক করা হয়) সদর উপজেলার ঘুঘুডিমা গ্রামের মো. আকবর আলীর ছেলে মো. সৈইবুর রহমান (৩৫), গাবতলা এলাকার মো. হানিফ আলীর ছেলে মো. শরিফুল ইসলাম (২৮), স্বরুপনগর এলাকার মৃত সিরাজুল ইসলামের ছেলে মো. মনোয়ার হোসেন পল্টু (৪০) ও নাচোল উপজেলার সোনাইচন্ডি গ্রামের মো. জসিম উদ্দীনের ছেলে মো. ফারুক হোসেন (২৯) এবং জাল সনদে আবেদনকারী সদর উপজেলার চক দৌলতপুর গ্রামের আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে মো. সাদ্দাম হোসেন (২১), একই উপজেলার দিনোনাথপুর গ্রামের মো. জেম আলীর ছেলে মো. তোহিদুল ইসলাম (২৯), বারঘরিয়া তফসিল পাড়ার মো. সেমাজুলের ছেলে মো. শিমুল (২৩), তাহেরপুর বালূগ্রামের মৃত জহুরুল ইসলামের ছেলে মো. আসমাউল হোসেন (৩২), মাঝপাড়ার তারেক আহম্মদের ছেলে মো. সাব্বির হোসেন (২৬)।নাচোল উপজেলার কামার জগদল গ্রামের মো. রশিদুল হকের ছেলে মো. এমদাদুল হক (৩৪), গোমস্তাপুর উপজেলার বাজারপাড়া গ্রামের মৃত সেরাজুলের ছেলে মো. হাবিবুর রহমান (২৪) ও বাঙ্গাবাড়ি রিফুজিপাড়ার মো. আব্দুস সামাদের ছেলে মো. শহিদুল ইসলাম (৩৫)। বুধবার(২০ জানুয়ারী ২০২১খ্রি.) বেলা ৩ টার দিকে এক প্রেস ব্রিফিং এ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহম্মদ মাহবুব আলম খাঁন পিপিএম এ তথ্য নিশ্চিত করে গণমাধ্যমে জানান, গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে ৪জন জাল সনদ সরবরাহকারী ও ৮ জন ভুয়া জাল সনদে ড্রাইভিং লাইসেন্স আবেদনকারীকে আটক করা হয়েছে। তিনি আরও জানান, আবেদনকারীরা যে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সনদ আবেদনে সংযুক্ত করেছে, তা স্ব স্ব প্রতিষ্ঠানের নয় বলে প্রত্যয়ন দিয়েছে প্রতিষ্ঠান প্রধানগণ। সেই সুত্র ধরে প্রথমে ৮ জন আবেদনকারীকে আটক করা হয়। তাদের দেয়া তথ্যানুযায়ী, জাল সনদ প্রদানকারী ৪ জনকে আটক করা হয়েছে। আটককৃত আসামীদের প্রচলিত আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে বলেও নিশ্চিত করেন, মোহাম্মদ মাহবুব আলম খাঁন, পিপিএম।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ