,


শিরোনাম:
«» তুরাগে গৃহবধু হত্যার অভিযোগে স্বামীর বন্ধু গ্রেফতার «» ভাড়া বাসায় অবস্থান করে স্বর্ণের দোকানে ডাকাতী করতো তারা’ «» ঈশ্বরদীতে ২০০ লিটার মদসহ গ্রেফতার ১ «» ঈশ্বরদীতে নবজাতক হত্যার অভিযোগ সাবেক স্বাস্থ্যকর্মীর আকলিমার বিরুদ্ধে «» সাংবাদিকতার দায় একমাত্র জনসাধারণের কাছে:তিতুমীর «» ঈশ্বরদীতে প্রণোদনার সার-বীজ প্রদানে স্বজনপ্রীতির অভিযোগ প্রকৃত কৃষকদের «» ঈশ্বরদীতে বালু খেকোদের কবলে বিলিন হাজার হেক্টর ফসলি জমি, দিশেহারা কৃষক «» ঠাকুরগাঁওয়ে বিশ্ব মৃত্তিকা দিবস পালিত র‍্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত «» চাঁপাইনবাবগঞ্জ সাবেক এমপি ও জেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদকের বাসভবনে হামলা «» চাঁপাইনবাবগঞ্জ কৃষকলীগের অনুষ্ঠানে সংঘর্ষে যুবলীগ নেতা মিনহাজ আহত

ময়মনসিংহের মুক্তাগাছায় নৌকার প্রার্থী বিল্লাল হোসেন সরকার বিপুল ভোটে বিজয়ী।

গোলাম কিবরিয়া পলাশ, ময়মনসিংহঃ মুক্তাগাছায় নৌকার প্রার্থী বিল্লাল হোসেন সরকার বিপুল ভোটে বিজয়ী – ময়মনসিংহের মুক্তাগাছা পৌর নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপে শনিবার ১৬ জানুয়ারি মুক্তাগাছা পৌরসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সুস্থু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে কোন প্রকার সহিংস ঘটনা ছাড়াই এ নির্বাচন শেষ হয়।

মুক্তাগাছা পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে মোট ভোটার সংখ্যা ৩৯ হাজার ৫ শত ৯৯। সকাল ৮ টা থেকে বিকাল ৪ টা পর্যন্ত বিরতিহীন ভাবে ভোট গ্রহণ করা হয়। পৌরসভায় ৫ জন মেয়র প্রার্থী ও সাধারণ কাউন্সিল পদে ৪৪ জন ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থী ১৩ সরাসরি ভোটে প্রতিদ্বন্ধীতা করেন।

সর্বশেষ ভোটের ফল গণনায় মেয়র পদে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী বিল্লাল হোসেন সরকার নৌকা প্রতীকে ১৭ হাজার ৩২০ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে জয়ী হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধীতা বিএনপি মনোনীত প্রার্থী সাবেক মেয়র শহিদুল ইসলাম ধানের শীষ প্রতিকে ৫ হাজার ২৬১ ভোট পান।

আ.লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী আবুল কাসেম মোবাইল প্রতীকে ২ হাজার ৮৬৩ ভোট, বিএনপি বিদ্রোহী প্রার্থী আক্রাম আলী ভুলু নারকেল গাছ প্রতীকে ১ হাজার ৩০৮ ভোট এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী আতাউর রহমান লেলিন জগ প্রতীকে ৯৬৭ ভোট পান। ময়মনসিংহের মুক্তাগাছা পৌর নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপে শনিবার ১৬ জানুয়ারি মুক্তাগাছা পৌরসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

সুস্থু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে কোন প্রকার সহিংস ঘটনা ছাড়াই এ নির্বাচন শেষ হয়। মুক্তাগাছা পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে মোট ভোটার সংখ্যা ৩৯ হাজার ৫ শত ৯৯। সকাল ৮ টা থেকে বিকাল ৪ টা পর্যন্ত বিরতিহীন ভাবে ভোট গ্রহণ করা হয়। পৌরসভায় ৫ জন মেয়র প্রার্থী ও সাধারণ কাউন্সিল পদে ৪৪ জন ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থী ১৩ সরাসরি ভোটে প্রতিদ্বন্ধীতা করেন।

সর্বশেষ ভোটের ফল গণনায় মেয়র পদে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী বিল্লাল হোসেন সরকার নৌকা প্রতীকে ১৭ হাজার ৩২০ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে জয়ী হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধীতা বিএনপি মনোনীত প্রার্থী সাবেক মেয়র শহিদুল ইসলাম ধানের শীষ প্রতিকে ৫ হাজার ২৬১ ভোট পান।

আ.লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী আবুল কাসেম মোবাইল প্রতীকে ২ হাজার ৮৬৩ ভোট, বিএনপি বিদ্রোহী প্রার্থী আক্রাম আলী ভুলু নারকেল গাছ প্রতীকে ১ হাজার ৩০৮ ভোট এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী আতাউর রহমান লেলিন জগ প্রতীকে ৯৬৭ ভোট পান।

কাউন্সিলর পদে ১নং ওয়ার্ডে মনিরুজ্জামান দুদু, ২নং ওয়ার্ডে মতিউর রহমান, ৩নং ওয়ার্ডে আব্দুর রাজ্জাক, ৪নং ওয়ার্ডে আমজাদ হোসেন, ৫নং ওয়ার্ডে আঃ হাকিম, ৬নং ওয়ার্ডে সাইফুল ইসলাম, ৭নং ওয়ার্ড মির্জা আবুল কালাম, ৮নং ওয়ার্ডে হানিফ মির্জা, ৯নং ওয়ার্ডে বজলুর রহমান জয়ী হন।

সংরক্ষিত মহিলা আসনে ১,২,৩ নং ওয়ার্ডে মমতাজ বেগম, ৪,৫,৬ নং ওয়ার্ডে শিখা আক্তার এবং ৭,৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডে জেসমিন আক্তার বেসরকারি ভাবে বিজয়ী হন।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ