,


শিরোনাম:
«» রাজধানীর তুরাগে ডোবা থেকে অজ্ঞাত তরুণীর মৃতদেহ উদ্ধার «» উত্তরায় মা দিবস উপলক্ষে ৩০জন রত্নগর্ভা ‘মা’কে সম্মাননা «» উত্তরায় শিনশিন জাপান হাসপাতালে রোগীকে আটক রেখে নয় লাখ টাকা বিল। «» আবদুল আউয়াল ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের পক্ষ থেকে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ «» তুরাগ বাসীসহ দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন কৃষকলীগের সভাপতি মোঃ নাসির উদ্দিন «» চাঁপাইনবাবগঞ্জে সার ডিলারদের অনিয়মে জিম্মি কৃষক ও চাষিরা «» ঢাকা-আশুলিয়া মহাসড়কে গাড়ির চাপায় সাবেক পুলিশ সদস্য নিহত «» চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে প্রশাসনকে কঠোর হওয়ার আহ্বান জানান এমপি হাবিব হাসান। «» মশার অসহ্যকর যন্ত্রণায় তিক্ত তুরাগবাসী, দায়িত্বশীলরা বলছেন অসহায়ত্বের কথা «» তুরাগে মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করাকে কেন্দ্র করে পুলিশের উপর বস্তিবাসীর হামলা। 

ময়মনসিংহের মুক্তাগাছায় নৌকার প্রার্থী বিল্লাল হোসেন সরকার বিপুল ভোটে বিজয়ী।

গোলাম কিবরিয়া পলাশ, ময়মনসিংহঃ মুক্তাগাছায় নৌকার প্রার্থী বিল্লাল হোসেন সরকার বিপুল ভোটে বিজয়ী – ময়মনসিংহের মুক্তাগাছা পৌর নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপে শনিবার ১৬ জানুয়ারি মুক্তাগাছা পৌরসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সুস্থু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে কোন প্রকার সহিংস ঘটনা ছাড়াই এ নির্বাচন শেষ হয়।

মুক্তাগাছা পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে মোট ভোটার সংখ্যা ৩৯ হাজার ৫ শত ৯৯। সকাল ৮ টা থেকে বিকাল ৪ টা পর্যন্ত বিরতিহীন ভাবে ভোট গ্রহণ করা হয়। পৌরসভায় ৫ জন মেয়র প্রার্থী ও সাধারণ কাউন্সিল পদে ৪৪ জন ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থী ১৩ সরাসরি ভোটে প্রতিদ্বন্ধীতা করেন।

সর্বশেষ ভোটের ফল গণনায় মেয়র পদে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী বিল্লাল হোসেন সরকার নৌকা প্রতীকে ১৭ হাজার ৩২০ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে জয়ী হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধীতা বিএনপি মনোনীত প্রার্থী সাবেক মেয়র শহিদুল ইসলাম ধানের শীষ প্রতিকে ৫ হাজার ২৬১ ভোট পান।

আ.লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী আবুল কাসেম মোবাইল প্রতীকে ২ হাজার ৮৬৩ ভোট, বিএনপি বিদ্রোহী প্রার্থী আক্রাম আলী ভুলু নারকেল গাছ প্রতীকে ১ হাজার ৩০৮ ভোট এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী আতাউর রহমান লেলিন জগ প্রতীকে ৯৬৭ ভোট পান। ময়মনসিংহের মুক্তাগাছা পৌর নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপে শনিবার ১৬ জানুয়ারি মুক্তাগাছা পৌরসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

সুস্থু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে কোন প্রকার সহিংস ঘটনা ছাড়াই এ নির্বাচন শেষ হয়। মুক্তাগাছা পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে মোট ভোটার সংখ্যা ৩৯ হাজার ৫ শত ৯৯। সকাল ৮ টা থেকে বিকাল ৪ টা পর্যন্ত বিরতিহীন ভাবে ভোট গ্রহণ করা হয়। পৌরসভায় ৫ জন মেয়র প্রার্থী ও সাধারণ কাউন্সিল পদে ৪৪ জন ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থী ১৩ সরাসরি ভোটে প্রতিদ্বন্ধীতা করেন।

সর্বশেষ ভোটের ফল গণনায় মেয়র পদে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী বিল্লাল হোসেন সরকার নৌকা প্রতীকে ১৭ হাজার ৩২০ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে জয়ী হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধীতা বিএনপি মনোনীত প্রার্থী সাবেক মেয়র শহিদুল ইসলাম ধানের শীষ প্রতিকে ৫ হাজার ২৬১ ভোট পান।

আ.লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী আবুল কাসেম মোবাইল প্রতীকে ২ হাজার ৮৬৩ ভোট, বিএনপি বিদ্রোহী প্রার্থী আক্রাম আলী ভুলু নারকেল গাছ প্রতীকে ১ হাজার ৩০৮ ভোট এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী আতাউর রহমান লেলিন জগ প্রতীকে ৯৬৭ ভোট পান।

কাউন্সিলর পদে ১নং ওয়ার্ডে মনিরুজ্জামান দুদু, ২নং ওয়ার্ডে মতিউর রহমান, ৩নং ওয়ার্ডে আব্দুর রাজ্জাক, ৪নং ওয়ার্ডে আমজাদ হোসেন, ৫নং ওয়ার্ডে আঃ হাকিম, ৬নং ওয়ার্ডে সাইফুল ইসলাম, ৭নং ওয়ার্ড মির্জা আবুল কালাম, ৮নং ওয়ার্ডে হানিফ মির্জা, ৯নং ওয়ার্ডে বজলুর রহমান জয়ী হন।

সংরক্ষিত মহিলা আসনে ১,২,৩ নং ওয়ার্ডে মমতাজ বেগম, ৪,৫,৬ নং ওয়ার্ডে শিখা আক্তার এবং ৭,৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডে জেসমিন আক্তার বেসরকারি ভাবে বিজয়ী হন।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।
ঘোষনাঃ